মুম্বই: মার্চ মাসে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন অভিনেত্রী উর্মিলা মাতণ্ডকর৷ কিন্তু পাঁচ মাস যেতে না যেতেই ছন্দপতন৷ কংগ্রেস ছাড়লেন উর্মিলা৷ কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে লেখা চিঠিতে তিনি জানান, মুম্বই কংগ্রেসের অন্তর্দ্বন্দ্বই তাঁর এই সিদ্ধান্তের কারণ৷ পাশাপাশি, শীর্ষ নেতৃত্বকে তাঁর লেখা ১৬ই মের একটি চিঠিও ফাঁস করে দেওয়া হয়েছে ইচ্ছাকৃতভাবে বলে অভিযোগ উর্মিলার৷ এই দলীয় কোন্দলে কাজ করা যায় না, এমন অভিযোগ তুলেছেন অভিনেত্রী৷

এক বিবৃতিতে উর্মিলা জানান, মুম্বই কংগ্রেসের মধ্যে অভ্যন্তরীণ কোন্দলে জেরবার তিনি৷ ভেবেছিলেন তাঁর যোগদানের পর পরিবর্তন আনতে সক্ষম হবেন, কিন্তু তিনি ব্যর্থ৷ নিজের কাজটুকুও করতে পারছেন না তিনি৷ তাই কংগ্রেসে থেকে কোনও লাভ নেই বলে জানিয়ে দিয়েছেন উর্মিলা মাতণ্ডকর৷

আরও পড়ুন : কাশ্মীর ভারতের রাজ্য: রাষ্ট্রসংঘে স্বীকার পাক বিদেশমন্ত্রীর

উল্লেখ্য, লোকসভা নির্বাচনের আগেই পরাজয়ের আশংকা করে একটি চিঠি দিয়েছিলেন উর্মিলা৷ সেই চিঠি লেখা হয়েছিল মুম্বই কংগ্রেসের সভাপতি মিলিন্দ দেওরাকে উদ্দ্যেশ্য করে৷ চিঠিতে প্রাক্তন সভাপতি সঞ্জয় নিরুপমের দুই সহযোগীর বিরুদ্ধে দলীয় অন্তর্ঘাতের অভিযোগ এনেছিলেন উর্মিলা৷ এই গোপন চিঠিই প্রকাশ্যে নিয়ে আসা হয় বলে অভিযোগ তাঁর৷ দুই সহযোগী ভূষণ পাটিল ও সন্দেশ কোন্দভিলকরের বিরুদ্ধেই মুখ খুলে বিপাকে পড়তে হয় উর্মিলাকে৷

এই বিষয়েই ক্ষুব্ধ হন প্রাক্তন এই কংগ্রেস নেত্রী৷ তাঁর সম্মানহানি করা হয়েছে বলে বক্তব্য রাখেন তিনি৷ তাঁর এই চিঠিকে গুরুত্ব দেয়নি প্রদেশ কংগ্রেস৷ গুরুত্ব না পেয়েই দল ছাড়ছেন বলে জানিয়ে দেন উর্মিলা৷
একসময় বলিউড কাঁপানো অভিনেত্রী মুম্বই নর্থ কেন্দ্র থেকে লোকসভা আসনের প্রার্থী হন৷ কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার একদিন পরেই কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন তিনি৷ জানান, পাঁচ বছরে দেশে অসহিষ্ণুতা বেড়েছে৷ হিংসার বাতাবরণ ছড়িয়েছে৷

আরও পড়ুন : ভারতে পালিয়ে এলেন ইমরানের দলের প্রাক্তন বিধায়ক, বললেন মুসলিমরাও ভালো নেই পাকিস্তানে

তাঁর আরও অভিযোগ ছিল, দেশে মত প্রকাশের কোনও স্বাধীনতা নেই। দেশে হিংসাই একমাত্র পথ হয়ে উঠেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। তিনি কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার পর থেকেই তাঁকে নিয়ে শুরু হয় ট্রোল। বছর কয়েক আগে এক কাশ্মীরি ব্যবসায়ীকে বিয়ে করেন উর্মিলা। তিনি কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার পরই অনেক বলতে থাকেন তিনি নাকি ধর্মান্তরিত হয়েছেন। ফেসবুকে ট্রোলও শুরু হয়ে যায়।