লখনউ: পূর্বতন সরকারের তৈরি সুবিশাল ফটক নাকি অবৈধ। সমগ্র নির্মাণ বেআইনি। এই অভিযোগ তুলে ভেঙে ফেলা হল উর্দু গেট। যা উত্তর প্রদেশের রামপুরে অবস্থিত ছিল। বুধবার জেলা প্রশাসন সম্পূর্ণ গুঁড়িয়ে ফেলে উর্দু গেট। ছবি সহ এই সংবাদ প্রকাশ করেছে হিন্দি সংবাদ মাধ্যম নবভারত টাইমস।

ভাঙার আগের অবস্থা

আরও পড়ুন- কে বড় মিথ্যেবাদী? লড়াই জমেছে পাকিস্তানের সেনা আর মন্ত্রীর

রামপুরের মহম্মদ আলি জৌহর বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে নির্মাণ করা হয়েছিল সুবিশাল উর্দু গেট। রাস্তার উপরে ওই গেটই ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশপথ। অখিলেশ যাদব পরিচালিত উত্তর প্রদেশ রাজ্য সরকারের মন্ত্রী আজম খান ওই গেট নির্মাণ করেছিলেন। গেটের মুখে তাঁর নামাঙ্কিত ফলকও লাগানো ছিল।

আরও পড়ুন- প্রশাসনিক বৈঠকে দলের বিধায়ককেই জুতোপেটা বিজেপি সাংসদের

নবভারত টাইমসের প্রতিবেদন অনুসারে, বুধবার ওই গেট সম্পূর্ণ ভেঙে ফেলা হয়েছে প্রশাসনিক উদ্যোগে। অভিযোগ, সরকারি জমি ব্যবহার করে অবৈধ উপায়ে ওই গেট নির্মাণ করা হয়েছিল। ওই গেট নির্মানের জণ্য জেলা প্রশাসনের থেকে কোনোপ্রকার অনুমতি নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন জেলা শাসক অঞ্জন কুমার সিং।

আরও পড়ুন- জামাত-উদ-দাওয়ার একগুচ্ছ মাদ্রাসা বাজেয়াপ্ত করল পাক সরকার

উর্দু গেট তৈরি হওয়ার ফলে সাধারণ মানুষের অনেক সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছিল বলে উল্লেখ করা হয়েছে পূর্ত দফতরের রিপোর্টে। কারণ যে রাস্তার উপরে ওই গেট নির্মাণ করা হয়েছিল সেটি রামপুর থেকে উত্তরাখণ্ডের সঙ্গে যুক্ত। রাস্তা দিয়ে খুব ভারী যান চলাচল করত। ওই গেট নির্মাণ হওয়ার পর থেকে ব্যাপক হারে যানজট বেড়ে গিয়েছিল রামপুর এলাকায়। অনেক বড় গাড়ি অন্য পথ দিয়ে ঘুরে যাতায়াত করার কারণে অন্য এলাকাতেও যানজটের সৃষ্টি হচ্ছিল। এমনই লেখা হয়েছে নবভারত টাইমসের প্রতিবেদনে।

আরও পড়ুন- উত্তেজনা কমছে দেখে ভারতে হাইকমিশনারকে ফেরাচ্ছে আতঙ্কিত পাকিস্তান