মুম্বই: গোটা একটা বছর কেটে গেছে বলিউড ‘ভাইজান’ এর কোন ছবিই মুক্তি পায়নি। সালমান ফ্যানেরা প্রতি বছর ঈদে একটি করে ভাইজানের সিনেমা দেখেই অভ্যস্ত। কিন্তু এবার করোনা অতিমারিতে সেই ছন্দের পতন ঘটেছে। তবে সালমান ফ্যানেদের জানিয়ে রাখি এবছর সালমানের হাতে রয়েছে বেশ অনেক গুলি ছবি। সেই তালিকায় রয়েছে- ‘রাধে’, ‘অন্তিম’, ‘কাভি ঈদ কাভি দিওয়ালী’, ‘কিক ২’, ‘টাইগার ৩’ । জানব সেই সব ছবির মুক্তির তারিখ, পরিচালক, ছবিতে আরও কারা করেছেন সেই সব কিছুই।

রাধে- ইওর মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই – এবছর ঈদের আগেই মুক্তি পাওয়ার সম্ভাবনা ‘রাধে- ইওর মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই’। এই ছবি দিয়েই সালমান এবছর পর্দায় ফিরছেন। ছবির পরিচালক প্রভুদেবা। সালমাল খান, সোহেল খান এনং অতুল অগ্নিহোত্রী প্রযোজিত এই ছবিতে দিশা পাতনি, রনদীপ হুডা, জ্যাকি শ্রফ রয়েছেন। ছবিটি থিয়েটারে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল ১৩ই মে। তবে মহারাষ্ট্রের পরিস্থিত যে দিকে ঘুরেছে তাতে ছবির মুক্তি পিছিয়ে গেছে বলেই জানান সালমান। পরিস্থিতি ঠিক থাকলে এবছর ঈদে থিয়েটারে মুক্তি পাবে ‘রাধে’।

অন্তিম- দ্য ফাইনাল ট্রুথ – এই ছবিতে একজন শিখ পুলিশম্যানের চরিত্রে দেখা যাবে সালমানকে। মহেশ মঞ্জরেকর পরিচালিত এই ছবিতে রয়েছেন দুটি হিরো। সালমান এবং আয়ুশ শর্মা। ছবির ফার্স্ট লুক গতবছর ডিসেম্বরেই প্রকাশ পেয়েছিল। সালমান খান ফিল্মস এর প্রযোজনায় তৈরি হয়েছে ‘অন্তিম’।

কাভি ঈদ কাভি দিওালি – ফারহাদ সামঝি পরিচালিত ছবি কাভি ঈদ কাভি দিওয়ালী। ছবিতে সালমানের সঙ্গে রয়েছেন পূজা হেগড়ে। এই প্রথম পূজা কাজ করতে চলেছেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের সঙ্গে। ছবির প্রযোজনায় রয়েছেন সাজিদ নাদিয়াওয়ালা। গতবছর সালমান এই ছবির ঘোষণা করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে এখন ছবি মুক্তির তারিখ নির্ধারিত হয়নি।

কিক ২- কাভি ঈদ কাভি দিওয়ালী প্রযোজনার পর সাজিদ নাদিয়াওয়ালি এবার পরিচালিনা করছেন কিক ২। এটি ২০১৪ সালের হিট ছবি ‘কিক’এর সিকুয়াল। সালমান এবং জ্যাকলিন রয়েছেন এই ছবিতে।

টাইগার ৩- ২০১২ সালের ‘এক থা টাইগার’ এর তৃতীয় সিকুয়াল টাইগার ৩। ২০১৭ সালে মুক্তি পেয়েছিল দ্বিতীয় সিকুয়াল ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’। মহেশ শর্মা পরিচালনায় এবং ইয়াশ রাজ ফিল্মস প্রযোজিত এই ছবিতে রয়েছেন সালমান খান, ক্যাটরিনা কাইফ এবং ইমরান হাশ্মি।

এছাড়াও আমির খান ও কারিনা কাপুর অভিনিত ‘লালা সিং চাড্ডা’ তেও ক্যামিও রোলে দেখা যাবে সালমান খানকে। এটি মুক্তি পেবে এই বছর ক্রিস্টমাসে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.