লখনউ: বিয়ের অনুষ্ঠানে নাচ পরিবেশন বন্ধ করায় এক তরুণীকে লক্ষ্য করে গুলি চালাল অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ব্যক্তি। বেশ কিছু দিন আগে উত্তর প্রদেশের চিত্রাকূট গ্রামে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে সে। জানা গিয়েছে, বিয়ে বাড়িতে অন্যদের সঙ্গে নাচ করায় সময় হঠাৎই অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ব্যক্তির ছোঁড়া গুলিতে আক্রান্ত হয় ওই তরুণী। ওই ব্যক্তির ছোঁড়া গুলি রুণীর মুখে এসে লাগে। বিয়ে বাড়িতে এমন ঘটনার সবাই হচকিয়ে গেলেও সঙ্গে সঙ্গে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। বর্তমানে কানপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে ওই তরুণী।

ঘটনাটি ঘটেছে, উত্তরপ্রদেশের বান্দা জেলার চিত্রাকূট গ্রামে। ঘটনাটি গত ১ ডিসেম্বর ঘটলেও নাচের ভিডিওটি প্রকাশ্যে আসে শুক্রবার সকালে। পুলিশ জানিয়েছে, গত ১ ডিসেম্বর চিত্রাকূট গ্রাম প্রধান সুধীর সিং প্যাটেলের মেয়ের বিয়ে ছিল। সেই বিয়েতেই অংশগ্রহণ করেছিল ওই তরুণী। গ্রাম প্রধানের মেয়ের বিয়ে উপলক্ষ্যে একটি গ্রুপের সঙ্গে স্টেজে নাচ করছিল ওই তরুণী। জানা গিয়েছে, সেই সময় স্টেজের নীচ থেকে কোনও এক অজ্ঞাত পরিচয়ের মদ্যপ ব্যক্তি তাঁকে একথাও বলেছিল ‘নাচ থামানো যাবে না। নাচ বন্ধ হলেই গুলি চালানো হবে।’ পুলিশ আরও জানিয়েছে, ওই তরুণী নাচ থামাতেই আচমকা পিছন দিক থেকে গুলি এসে লাগে তাঁর মুখে। হঠাৎ করে ছুটে আসা গুলির শব্দে স্টেজের উপরে এবং নীচে থাকা সকলেই হচকিয়ে যান।

সঙ্গে সঙ্গে আহত ওই তরুণীকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। বর্তমানে কানপুর হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে ওই তরুণী। এই ঘটনায় ওই পাত্রীর দুই খুড়তুতো কাকাও জখম হয়েছেন।

চিত্রাকূটের উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিক অঙ্কিত মিতাল জানিয়েছেন, এই ঘটনায় ওই গ্রাম প্রধানের বাড়ির কোনও সদস্য জড়িত থাকতে পারে। যদিও গত রবিবার পুলিশের কাছে এই বিষয়ে ওই অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন পাত্রীর এক কাকা রাম প্রতাপ।

রাম প্রতাপের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অঙ্কিত মিতাল আরও জানান, পুলিশের তরফে অভিযুক্তকে খুঁজে বের করতে সব রকম চেষ্টা করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, এই রকম একই কায়দায় ২০১৬ সালে পঞ্জাবের বাথিনডায় বছর পঁচিশের এক গর্ভবতী যুবতীকে প্রকাশ্যে বিয়ে বাড়িতে গুলি করে খুন করা হয়েছিল। জানা গিয়েছে, সেদিন বাথিনডার একটি বিয়ে বাড়িতে স্টেজ পারফর্ম করার সময় সবার সামনে ওই যুবতীর পেটে গুলি চালানো হয়। ঘটনাস্থলেই মারা যায় কুলিন্দর কউর নামের ওই যুবতী।

ঠিক একই ঘটনা গত বছর দিল্লীর একটি বারেও ঘটেছিল। জানা গিয়েছে, সেদিনের ঘটনায় এক যুবক বারে নিজের জন্মদিন সেলিব্রেট করতে গিয়েছিল। সেদিন বারে ডিজের বদলে গান চালানো নিয়ে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। সেই সময় গুলি করে মারা হয় ওই যুবককে।