লখনউ: কতই রঙ্গ দেখি দুনিয়ায়৷ স্ত্রী পালিয়ে ছিলেন প্রেমিকের সঙ্গে৷ স্বাভাবিকভাবেই মেনে নেননি স্বামী৷ তবে পরে মানলেন৷ যদিও এর পিছনে প্রেমিকের বুদ্ধি কাজ করল আশ্চর্যভাবে৷ অদ্ভুত এক চুক্তি হল দুজনের মধ্যে৷ প্রেমিকের দেওয়া অদ্ভুত ঘুষের বিনিময়ে স্বামী ছেড়ে দিলেন স্ত্রীকে৷

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের গোরখপুরে৷ চারপানি গ্রামে স্বামীর বাড়ি ছেড়ে বেড়িয়ে এসে প্রেমিকের সঙ্গে থাকছিলেন ওই মহিলা৷ অশান্তি শুরু করেন স্বামী৷ এরপরেই চুক্তিবদ্ধ হন ওই মহিলার স্বামী ও প্রেমিক৷ প্রেমিক সেই স্বামীকে প্রস্তাব দেন ৭১টি ভেড়া দেবেন৷ তার বদলে, তাঁর স্ত্রীকে ছেড়ে দিতে হবে৷ এই প্রস্তাব নিয়ে পঞ্চায়েতের দ্বারস্থ হন প্রেমিক উমেশ পাল (২৭)৷

আরও পড়ুন : জওহরলালের নাম সরিয়ে দেওয়া হোক মোদীর নাম, দাবি বিজেপি সাংসদের

টাইমস অফ ইণ্ডিয়ায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা গিয়েছে, এরপর নিদান দেয় পঞ্চায়েত৷ উমেশকে বলা হয়, মহিলার স্বামী রাজেশ পালকে ৭১টি ভেড়া দিতে হবে৷ তবেই ওই মহিলা সীমা পালের(২৫) সঙ্গে থাকার অনুমতি পাবে উমেস৷ এদিকে, রাজেশ এই চুক্তিতে বেশ খুশি হয়৷ উমেশও সীমার সঙ্গে থাকার প্রস্তাবে এই ৭১টি ভেড়া রাজেশের হাতে তুলে দেয়৷ পঞ্চায়েতের নিদানে তিনজনেই বেশ খুশি বলে জানা যায়৷

যদিও খুশি হতে পারেনি উমেশের বাবা ও তার পরিবার৷ সীমার বদলে এতগুলি দামী ভেড়া রাজেশকে দিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব মেনে নিতে পারছেন না তাঁরা৷ পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন উমেশের বাবা৷ তাঁর দাবি অবৈধ ভাবে তাদের ভেড়া নিয়ে গিয়েছে রাজেশ৷ একটি এফআইআরও করা হয়েছে রাজেশের নামে৷ খোরাবার থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে৷

আরও পড়ুন : খালি পায়ে ১১ সেকেন্ডে ১০০ মিটার, রামেশ্বরের দৌড়ে তাজ্জব নেটদুনিয়া

তবে পুলিশের কাছে রাজেশের দাবি, একটি ভেড়াও তিনি চুরি করেননি৷ সবই তাকে উমেশ দিয়েছে৷ তবে উমেশের বাবার দাবি প্রতিটি ভেড়া তিনি ফেরত চান৷ আর কিছু জানতে চান না তিনি৷ তবে ওই মহিলা সীমা পালের বক্তব্য স্বামীর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক ভালো নয়৷ তিনি স্বামীর কাছে ফিরতে চান না৷

তবে তদন্ত শেষ করে পুলিশ জানায়, উমেশ নিজের ইচ্ছায় এই ৭১টি ভেড়া রাজেশকে দিয়েছে৷ তাই এক্ষেত্রে রাজেশ কোনওভাবেই দায়ী নয়৷ ফলে ভেড়াগুলি উমেশের পরিবার আর ফেরত পাবে না৷