লখনউ: সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে এবার সরব উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের বিজেপি বিধায়ক রাধামোহন দাস আগরওয়াল। নাগরিকত্ব আইনের জন্য যদি একজন মুসলিমকেও ভারত ছাড়তে হয় তবে তিনি পদ থেকে ইস্তফা দেবেন বলে জানিয়েছেন ওই বিজেপি বিধায়ক।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে শুরু থেকেই বিরোধীদের প্রবল সমালোচনায় বেশ খানিকটা ব্যাকফুটে কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপি। অবিজেপি একাধিক দলের লাগাতার আন্দোলনে পালটা সিএএ-র সমর্থনে রাজ্যে-রাজ্যে অভিনন্দন যাত্রাও শুরু করেছে গেরুয়া শিবির। অভিনন্দন যাত্রার মধ্য দিয়ে দেশবাসীকে নাগরিকত্ব আইন সম্পর্কে ব্যাখ্যা দিচ্ছেন বিজেপি নেতারা। দেশজুড়েই চলছে এই কর্মসূচি। এরই মধ্যে পদ্ম শিবিরের অস্বস্তি বাড়ালেন যোগীরাজ্যের এক বিজেপি বিধায়ক। গোরক্ষপুরের বিধায়ক রাধামোহন দাস আগরওয়াল বলেন, ‘সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের জন্য যদি একজন ভারতীয় মুসলিমকেও দেশছাড়া হতে হয় তবে আমি ইস্তফা দেব।’

দেশের অন্যান্য অংশের পাশাপাশি উত্তরপ্রদেশেও বাড়ি-বাড়ি ঘুরে নাগরিকত্ব আইন সম্পর্কে মানুষকে বোঝাচ্ছেন বিজেপি নেতারা। সেই কর্মসূচিতে বেরিয়েই এই কথা বলেন গোরক্ষপুরের বিজেপি বিধায়ক। বিধায়ক রাধামোহন দাস তাঁর নির্বাচনী কেন্দ্রের মুসলিম মহল্লাগুলিতে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে জন সমর্থন বাড়ানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন। দলীয় কর্মসূচিতে গিয়ে মুসলিম পরিবারগুলিকে আশ্বস্ত করছেন বিজেপির এই বিধায়ক। এই প্রসঙ্গে রাধামোহন দাস আগরওয়াল আরও বলেন, ‘আমি মুসলমানদের আশ্বাস দিয়েছি। গোরক্ষপুরে কোনও প্রকৃত ভারতীয় নাগরিককে নাগরিকত্ব আইনের জন্য যদি বিতাড়িত করা হয় তবে আমি পদ থেকে ইস্তফা দেব।’

নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে সওয়াল করে গোরক্ষপুরের বিজেপি বিধায়ক আরও বলেন, ‘নাগরিকত্ব আইন মুসলিমদের নাগরিকত্ব কাড়ার জন্য তৈরি হয়নি। বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তান থেকে আসা অ-মুসলিমদের নাগরিকত্ব দিতেই এই আিন তৈরি হয়েছে। মুসলিমদের সন্দেহ দূর করতে সব রকমভাবে চেষ্টা করছি।’

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।