কলকাতা: বৃহস্পতিবার রাতে মৃত্যুর খবর মেলে প্রখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার শর্বরী দত্তর। রাতে তাঁর ব্রড স্ট্রিটের বাড়ির শৌচাগার থেকে দেহ উদ্ধার করা হয়। তবে কী কারণে এই মৃত্যু তা নিয়ে এখনও ধন্দ রয়েছে।

জানা গিয়েছে শর্বরী দত্তের পায়ে রয়েছে আঘাতের চিহ্ন, সেখান থেকে রক্তক্ষরণও হয়েছে প্রচুর। পড়ে গিয়ে তিনি পায়ে আঘাত পেয়েছিলেন কিনা তা এখনই স্পষ্ট নয়।

তবে বাথ্রুমে পড়ে গেলে তাঁর মাথায় আঘাত লাগার কথা। কিন্তু এক্ষেত্রে তেমন কিছু হয়নি বলে জানা গিয়েছে। তবে ইন্টারনাল ইনজুরি হতে পারে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না এলে বোঝা যাচ্ছে না আসল কারণ।

পরিবারের লোকজনের বক্তব্য, গতকাল সকাল থেকেই খোঁজ মিলছিল না শর্বরী দত্তের। সকলে মনে করেছিলেন তিনি কোনও কাজে বেরিয়েছেন। তাঁর ছেলে অমলিন দত্তর দাবি, রাতেও মা না ফেরায় চিন্তিত হয়ে পড়েন তাঁরা। এরপর রাত সাড়ে ১১ টা নাগাদ বাথরুম থেকে উদ্ধার হয় শর্বরী দত্তের মৃতদেহ।

ডিজাইনার এর মৃত্যুর খবরে ইতিমধ্যেই শোকের ছায়া পড়েছে কলকাতার বিনোদন ও ফ্যাশন জগতে। বহু শিল্পীরা শর্বরী দত্তের মৃত্যুর খবরে শোক প্রকাশ করেছেন। গায়িকা পরমা বন্দ্যোপাধ্যায় সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন, “শর্বরীদি এভাবে চলে গেলেন। ভাবতে পারছি না।”

পুরুষদের ট্রাডিশনাল পোশাক ডিজাইনিং এর জন্য সারা ভারতবর্ষে তিনি ছিলেন খ্যাতনামা। শর্বরী দপ্তর ডিজাইন করা পোশাক পরেছেন জগজিৎ সিং, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, অভিষেক বচ্চন, বিজয় মাল্য, লিয়েন্ডার পেজ, কপিল দেব, বাইচুং ভুটিয়া সহ আরো অনেকে। তাঁর এই আকস্মিক মৃত্যুতে শোকোস্তব্ধ ফ্যাশন এবং বিনোদন জগৎ।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।