নয়াদিল্লি: লকডাউন ৪ পার করে দেশ পা দিল আনলক ১ এ। অনেকে একে লকডাউন ৫ আখ্যা দিলেও আসলে সোমবার থেকেই লকডাউন শিথিল করছে কেন্দ্র। ধাপে ধাপে আনা হবে এই শিথিলতা। ১ জুন প্রথম শিথিলতার ধাপ, তাই কেন্দ্রের বলা যেতে পারে আজ থেকেই চালু আনলক ১।

এই ধাপে অর্থাৎ আনলক ১ -এ অর্থনীতির দিকে বিশেষ নজর দেওয়া হচ্ছে বলে জনাইয়েছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের গাইডলাইন। রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলগুলির সঙ্গে পরামর্শের পরেই এই নতুন গাইডলাইন জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

এর আগে যেসব ক্ষেত্রে বিধি নিষেধ ছিল, এবার কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে সেগুলি সবই চালু করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের জারি করা নিয়মের ভিত্তিতে সব কিছু চালু হবে বলে জানানো হয়েছে।

তবে আনলক ১ চালু হলেও হোটেল, রেস্তোরাঁ বা শপিং মল খোলার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরও ৭ দিন। ৮ তারিখ থেকে কন্টেনমেন্ট জোনের বাইরের এলাকায় ধর্মীয়স্থান, হোটেল এবং রেস্টুরেন্ট খোলার অনুমতি দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

তবে কন্টেনমেন্ট জোনে লকডাউন জারি রয়েছে ৩০ জুন অবধি। কনটেনমেন্ট জোনে জরুরি কাজকর্ম ছাড়া সবকিছুই বন্ধ। শুধুমাত্র নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস ডেলিভারি করার ক্ষেত্রে এবং মেডিক্যাল এমার্জেন্সির ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া আছে।

এছাড়া ওইসব এলাকায় প্রত্যেকটি বাড়িতে বিশেষ সারভিলিয়েন্স বা নজরদারি চালানো হবে। সঠিকভাবে কনট্যাক্ট ট্রেসিং করা হবে অর্থাৎ কারা আক্রান্তের সংস্পর্শে এসেছে, তা চিহ্নিত করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশিকা অনুযায়ী জেলা প্রশাসনগুলিকে কনটেনমেন্ট জোন চিহ্নিত করতে হবে। সেই ভিত্তিতেই জারি হবে গাইডলাইন।

অন্যদিকে আনলক ১ চালু হলেও সব যে খুলে গেল এমন মোটেই না। বন্ধ থাকছে সিনেমা হল, জিম, সুইমিং পুল, এন্টারটেনমেন্ট পার্ক, থিয়েটার, বার, অডিটোরিয়াম, হল বা এই ধরনের জায়গা। জরুরি পরিষেবা ছাড়া রাত ৯ টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত কেউ কোথাও যেতে পারবে না। বন্ধ সাধারণ যাত্রীবাহী লোকাল ট্রেন ও মেট্রো।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প