মুম্বই: সেপ্টেম্বরে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে আইপিএলের আগে ভারতীয় দলের প্রস্তুতি শিবির সম্ভবত হচ্ছে না। দেশে করোনা সংক্রমণ প্রতিদিন বেড়ে যাওয়ায় এমনই সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে বিসিসিআই৷ এই মুহূর্তে আহমেদাবাদে প্রস্তুতি শিবির করাটাও ঝুঁকিপূর্ণ মনে করছে বোর্ড। তাই বিরাটদের প্রস্তুতি শিবির বাতিল করতে চলেছে বিসিসিআই৷

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে মার্চ থেকে ক্রিকেট বন্ধ রয়েছে সারা দেশে৷ ইংল্যান্ডের মাটিতে চলতি মাস থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট চালু হলেও ভারতের মাটিতে তা এখনও অসম্ভব৷ যে কারণে বোর্ডে চলতি বছর আইপিএল বিদেশের মাটিতে অর্থাৎ আরব আমিরশাহীতে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ কিন্তু তার আগে চার মাস ঘর বন্দি থাকা ক্রিকেটারের জন্য প্রস্তুতি শিবিরের কথা ভেবেছিল সৌরভ অ্যান্ড কোং৷ কিন্তু তাও বাতিল হতে চলেছে৷ সম্ভবত রবিবার আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকেই তা ঠিক হয়ে যাবে৷

এই প্রস্ততি শিবির হওয়ার কথা ছিল গুজরাতের নবনির্মিত মোতেরা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে৷ কিন্তু গুজরাত ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনে তরফে জানা গিয়েছে বোর্ডের কাছ থেকে তারা এখনও কোনও নির্দেশ পায়নি৷ যদিও বিসিসিআই অ্যাপেক্স কাউন্সিল এর আগে কন্ডিশনিং ক্যাম্পের জন্য মোতেরা স্টেডিয়ামে শূন্য করেছিল।

পিটিআই-কে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন জিসিএ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, যে মিডিয়া রিপোর্টে বলা হয়েছে যে ১৮ অগস্ট থেকে ক্যাম্প শুরু হওয়ার কথা৷ যা চলবে ৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত৷ তবে বিসিসিআই থেকে এখনও পর্যন্ত জিসিএ কোনও আনুষ্ঠানিক তথ্য পায়নি। বায়ো-সিকিওর পরিবেশে একটা সপ্তাহ দু’য়েকের প্রস্তুতি শিবির করবেন বিরাটরা। তারপর সেখান থেকে নিজ নিজ ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে খেলতে উড়ে যাবেন আমিরশাহী। মাল্টি-সিটি ভ্রমণকারী খেলোয়াড়রা এই বর্তমান পরিস্থিতিতে আরও বেশি স্বাস্থ্য ঝুঁকির মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তুলতে পারে৷ তাই এই মুহূর্তে শিবিরটি বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে৷

সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে আইপিএল ২০২০ হওয়ার কথা ঘোষণা করেছে বোর্ড৷ বিসিসিআই-এর থেকে আইপিএল আয়োজনের চিঠি পাওয়ার কথা জানিয়ে দিয়েছে ইমিরেটস ক্রিকেট বোর্ড৷ সোমবার ইসিবি (ইমিরেটস ক্রিকেট বোর্ড) ২০২০ আইপিএল আয়োজের কথা সরকারিভাবে জানিয়ে এক বিবৃতিতে বলেছে যে, তারা ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকে একটি অফিসিয়াল “লেটার অফ ইনটেন্ট” পেয়েছে। তবে ভারত সরকারের চূড়ান্ত নির্দেশের অপেক্ষায় রয়েছে তারা।

আবু ধাবি, শারজা এবং দুবাইয়ের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আইপিএলের ম্যাচগুলি হওয়ার কথা৷ করোনা সর্তকতায় একগুচ্ছ পদক্ষেপ নিতে চলেছে বোর্ড৷ যা নিয়ে রবিবারের বৈঠকে আলোচনা না৷ এগুলি হল, ম্যাচগুলি হবে দর্শক শূন্য স্টেডিয়ামে৷ অন্তত শুরুর দিকে স্টেডিয়ামের ভিতরে কোনও ক্রিকেট ফ্যানের ঢোকার অনুমতি দেওয়া হবে না৷ ডাগ-আউটে বেশি ভিড় করা যাবে না৷ ড্রেসিংরুমে ১৫ জনের বেশি খেলোয়াড় থাকতে পারবে না৷ সামাজিক দূরত্বের নিয়মগুলি অনুসরণ করে হবে ম্যাচ পরবর্তী পুরষ্কার অনুষ্ঠান৷ কমেন্টটেটর স্টুডিওতে ছ’ ফুট দূরত্বে বসার জন্য ঘর৷ এছাড়া সব ক্রিকেটারদেরই দু’ সপ্তাহের মধ্যে চারবার কোভিড-১৯ টেস্ট হবে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।