বেজিং  দলাই লামা ইস্যুতে নতুন করে ফের চিন-ভারতের মধ্যে তৈরি হয়েছে উত্তেজনা! তিব্বতি ধর্মগুরু দলাই লামার অরুণাচলে ঢোকা নিয়ে চরম ক্ষুব্ধ লালচিন।  ভারতের এই সিদ্ধান্তের ফলে দুইদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে যে চরম আঘাত আসবে তা আগেই হুঁশিয়ারি দিয়ে জানিয়েছে চিন।  তবে অরুনাচলের বিতর্কিত এলাকায় (তাওয়াং) দলাই লামাকে সফরের অনুমতি দিয়ে সীমান্ত সমস্যা আরও বেড়ে যাবে বলে মত চিনের।

চিন বলেছে, কূটনৈতিকভাবে বেজিং দলাই লামার সফরের আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ জানাবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।  অন্যদিকে আবার নিজেদের সরকারি সংবাদ মাধ্যম গ্লোবাল টাইমসের মাধ্যমে চিন নজিরবিহীন হুমকি দিয়েছে।  সেখানে বলা হয়েছে, ভারত যদি মনে করে চিনের স্বার্থে আঘাত দিয়েও সে ক্রমেই অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে নির্বিঘ্নে অগ্রসর হতে পারবে তাহলে সেটা ভুল।  চিনকে ভারত আন্ডারএস্টিমেট করে ভুল করছে বলে রীতিমতো হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে।  এবং এখানেই শেষ নয়।  এই প্রথম চিন সরাসরি নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করেছে।

গ্লোবাল টাইমসে বলা হয়েছে, ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী পূর্বের প্রধানমন্ত্রীদের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা।  তিনি কূটনৈতিক প্রটোকল ভঙ্গ করছেন।  ঐতিহাসিকভাবে গৃহীত অবস্থানগুলিকে এই সরকার ধাক্কা দিয়ে পারস্পরিক সম্পর্ককে অত্যন্ত কঠিন জায়গায় নিয়ে যাচ্ছে।  প্রসঙ্গত, ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী কিরণ রিজিজু চিনকে পালটা জবাব দিয়েছিলেন।  তিনি বলেছিলেন, অরুণাচল ভারতের একটি অঙ্গরাজ্য।  ভারতের সার্বভৌম অধিকার আছে যে কোনও অতিথিকে নিজের দেশে যে কোনও প্রান্তে স্বাগত জানানোর।  চিনের কোনও এক্তিয়ার নেই ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে নাক গলানোর।  আজ চিন সেই কারণেই আরও আক্রমণাত্মক ভূমিকা নিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।