ফাইল ছবি

কলকাতাঃ  দীর্ঘ টালবাহানার পর অবশেষে পাশ হল উপাচার্যদের অবসরের বয়স বৃদ্ধির বিল। পশ্চিমবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় আইন সংশোধন করে এবার থেকে উপাচার্যদের অবসরের বয়স ৬৫ থেকে ৭০ করা হল। অভিজ্ঞ শিক্ষক তথা উপাচার্যদের বিশ্ববিদ্যালয়ে ধরে রাখার জন্য সব রকম প্রচেষ্টা করা হচ্ছে বলে বিলে উল্লেখ করা হয়েছে।

৬৫ বছর পরও উপাচার্যরা তাঁদের সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজ চালিয়ে যেতে পারবেন বলে নয়া এই বিলে বলা হয়েছে। তাতে শুধু সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ভালো নয়, সার্বিকভাবে সবারই উন্নতি হবে বলে মনে করছে সরকার। এর ফলে নবীন এবং যুব শিক্ষকদের কাছে এই প্রবীণ উপাচার্যরা অনুপ্রেরণা হয়ে উঠবেন বলেই মনে করছে শিক্ষা দফতর।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখানে গিয়ে উপাচার্যদের অবসরের বয়স বাড়ানোর কথা বলেছিলেন। শুধু কথার কথা নয়, তা কার্যকর করতে আইনি পরিবর্তন করতে বিধানসভার চলতি অধিবেশনেই বিল আনা হয়। সম্প্রতি তা পাশ হয়েছে বিধানসভাতে।

উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় আইন সংশোধন করে অবসরের বয়স বাড়ানো হয়েছে ঠিকই কিন্তু বিভিন্ন কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সব উপাচার্যের ক্ষেত্রে তা কার্যকর করা হবে তা এখনই বলা যাচ্ছে না। কারণ এই প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, সংশ্লিষ্ট উপাচার্যদের কর্মদক্ষতা ও শারীরিক ক্ষমতা যাচাই করে বয়স বাড়ানোয় সম্মতি দেওয়া হবে। যেমন, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাসের কার্যকালের মেয়াদ ৬৫-র পরে দু’বছর বাড়ানো হলেও সিধো কানহু বিরসার উপাচার্য দীপক মণ্ডল ৬৫ বছরেই অবসর নিয়েছেন।

সূত্রের খবর, আগামীদিনে এই বিষয়ে রাজ্যপাল তথা আচার্যের সঙ্গে আলোচনা করবেন শিক্ষামন্ত্রী। আর এরপরেই উপাচার্যদের মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন। তবে বয়স ৬৫ থেকে এক লাফে বাড়িয়ে ৭০ বছর করা হবে না। ধাপে ধাপে ২+২+১ হিসাবে তা বাড়ানো হবে।