সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: মগজাস্ত্রের খেলায় মহানগরকে হেলায় হারাল হাওড়া। কলকাতার প্রাইভেট ডিটেকটিভ ফেলুদার মগজাস্ত্রে কাবু হয়েছে সুদূর বেনারসের ধুরন্ধর চোরাপাচারি মগনলাল মেঘরাজ। গিরিডিবাসী বাঙালি বিজ্ঞানী শঙ্কুর মগজের আবিষ্কার চালে ‘কাবু’ হয়েছে ব্রাজিলের কালো বাঘ। হাওড়াবাসির সেই মগজের খেলে কাবু কলকাতা। সৌজন্যে ‘হার্টবিট’ আয়োজিত কুইজ প্রতিযোগিতা।

ফেলুদাকে নিয়ে কুইজ আগেও হয়েছে। ফেলুদা শঙ্কুকে দুজনকে একসঙ্গে নিয়ে কুইজ এই প্রথম বলেই জানাচ্ছে ‘হার্টবিট’। সেখানেই মহানগরবাসীকে টেক্কা দিয়েছে হাওড়ার দুই বাসিন্দা। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতিযোগিতারা অংশ নিয়েছিলেন ৭৫ জন প্রতিযোগী।

আরও পড়ুন: মনুয়ার মতোই স্বামীকে খুনে অভিযুক্ত শ্রাবণী

এদেরকেই ৩৭টি দলে ভাগ করে নেওয়া হয়েছিল। রাজ্যের ১২টি জেলা থেকে আসা প্রতিযোগীদের মধ্যেই ছিলেন হাওড়ার আন্দুলের কৌস্তভ নাথ ও পিন্টু চক্রবর্তী। কলকাতা থেকে অংশ নিয়েছিলেন সুপ্রিয় মণ্ডল, সৌনক ঘোষ। মগজাস্ত্রের হিরোদের নিয়ে কুইজে মগজাস্ত্রের ব্যবহার করেই কলকাতাবাসীকে হারালেন দুই হাওড়াবাসী।

গঙ্গার দুই পাড়ের শহর। ব্রিজের মাধ্যমে যাতায়াত চলছে অহরহ। কিন্তু কোথাও না কোথাও একটা মানসিক যুদ্ধ চলে দুই শহরের মধ্যে। প্রতিযোগিতার অন্যতম উদ্যোক্তা শিলাদিত্য বলেন, “শুধু ফেলুদাকে নিয়ে কুইজ আগেও হয়েছে। কিন্তু ফেলুদার সঙ্গে শঙ্কুকে নিয়ে কুইজ এই প্রথম। আসলে আমাদের চারদিনের কুইজ প্রতিযোগিতা ছিল। তার মধ্যে ফেলুদা শঙ্কুও একটি অংশ ছিল।”

আরও পড়ুন: ফের ভুয়ো চিকিৎসকের হদিশ মিলল কলকাতায়

ফেলুদা বা শঙ্কুকে কিশোর সাহিত্য বলা হলেও আদতে তা আট থেকে আশি প্রত্যেকের কাছেই সমান জনপ্রিয়। তাই কোনও বয়স সীমা ছিল না। কৌস্তভ নাথ, পিন্টু চক্রবর্তীরা চল্লিশ পেরিয়েছেন কিন্তু ফেলুদা শঙ্কুর জন্য ভালবাসা থেকে গিয়েছে একইরকম। সেই ভালোবাসা নিয়েই এমন কুইজে হাজির হয়েছিলেন তাঁরা। শিলাদিত্য বলেন, “ফেলুদা বা শঙ্কুর বিভিন্ন গল্পের প্লট, স্থান, বিষয় নিয়ে করা হয়েছিল ৩০টি প্রশ্ন সাজিয়েছিলেন কুইজ মাস্টার অরিঘ্ন চট্টোপাধ্যায়। হাতে লিখে উত্তরপত্র জমা দিতে হয়েছিল।” এখানেই হাওড়ার কৌস্তভ নাথ ও পিন্টু চক্রবর্তী হারিয়েছেন কলকাতার সুপ্রিয় মণ্ডল, সৌনক ঘোষকে।

আরও পড়ুন: নেইমার এখন ক্ষুদে ফুটবলারদের রোলমডেল

অরিঘ্ন চট্টোপাধ্যায় বলেন, “অনেক খুঁটিয়ে প্রশ্ন করা হয়েছিল। গুলে খাওয়া হলেও কুইজের জন্য ফেলুদা ও শঙ্কু সমগ্রকে আরেকবার পড়তে হয়েছে।” সেখানেই কলকাতার সঙ্গে লড়াই জিতে নিয়েছেন হাওড়ানিবাসী।

প্রতিযোগিতার অন্যন্য দিনগুলিতে বাঙালিয়ানা, বিউটিফুল বেঙ্গলের মতো বিষয় তুলে আনা হয়েছিল। ১৬ জেলা থেকে প্রতিযোগীরা অংশ নিয়েছিলেন। আলোচনা হয় কুইজের হালহকিকত নিয়েও।

আরও পড়ুন: বিদেশের মাটিতে অনিন্দ্যের ‘ওয়াচমেকার’