কলকাতা: দিন-রাতের টেস্ট ম্যাচে যথাযথ বল দেখতে পাওয়া নিয়েই সংশয় থাকে সব থেকে বেশি। বিশেষ করে দিনের শেষ বেলায় সূর্যালোক ও ফ্লাডলাইটের কৃত্রিম আলো যখন একই সঙ্গে বিরাজ করে মাঠে, তখন টুইলাইট পরিস্থিতিতে বল দেখা ব্যাটসম্যানদের পক্ষে তুলনায় কঠিন হয়ে দাঁড়ায়।

আইসিসির এলিট প্যানেলের প্রাক্তন আম্পায়ার সাইমন টফেল মনে করেন, শুধু ব্যাটসম্যানদের জন্যই নয়, সন্ধ্যার সময় বল দেখা চ্যালেঞ্জের হয়ে দাঁড়ায় আম্পায়ারদের কাছেও। এ কারণেই গোলাপি বলের সঙ্গে চোখ সড়গড় করতে দায়িত্বপ্রাপ্ত ফিল্ড আম্পায়ারদের সংশ্লিষ্ট দু’দলের অনুশীলনের সময় মাঠে হাজির থাকার পরামর্শ দিলেন তিনি।

প্রাক্তন অজি আম্পায়ার বলেন, ‘আমি জানি না আম্পাররা যথাযথ বল দেখার জন্য কোনও বিশেষ লেন্স ব্যবহার করেন কিনা। এটা সম্পূর্ণ তাঁদের ওপর নির্ভর করে। তবে আমার মনে হয় যত বেশি সম্ভব দু’দলের নেট সেশনের সময় আম্পায়ারদের মাঠে হাজির থাকা উচিত। শুধু গোলাপি বলে সঙ্গে চোখ সড়গড় করার জন্যই নয়, নেট সেশনে চোখ রাখলে আম্পায়াররা বুঝতে পারবেন বল যথাযথ দেখা যাচ্ছে কি না এবং ঠিক সময়ে ঠিক সিদ্ধান্ত দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনও অসুবিধা তৈরি হতে পারে কি না।’

টাফেল আরও বলেন, ‘যে সময়টায় মাঠে টুইলাইট পরিস্থিতি তৈরি হয়, যখন উজ্জ্বল সূর্যালোক থেকে ম্যাচ পরিস্থিতি বদলে ঢুকে পড়ে ফ্লাডলাইটের কৃত্রিম আলোয়, তখন বল দেখা সত্যিই একটু সমস্যা হয়ে দাঁড়াতে পারে।সেই সময়টায় বল দেখা শুধু ব্যাটসম্যানদের কাছেই চ্যালেঞ্জের নয়, একই রকম চ্যালেঞ্জের আম্পায়ারদের কাছেও। ব্যাটসম্যানদের থেকেও বলের উপর তীক্ষ্ণ নজর রাখতে হয় আম্পায়ারদের বেশি।’

অ্যাডিলেডে ইতিহাসের প্রথম ডে-নাইট টেস্টের সময় আইসিসির আম্পায়ার পারফরম্যান্স এন্ড ট্রেনিং ম্যানেজার হিসেবে মাঠে উপস্থিত ছিলেন টাফেল। অফিশিয়াল হিসেবে নিজে গোলাপি বলে দিন রাতের কোনও টেস্ট ম্যাচ পরিচালনা না করলেও একাধিক ম্যাচ মাঠের বাইরে থেকে দেখেছেন। নিজের বই প্রকাশ উপলক্ষে এই মুহূর্তে তিনি ভারতেই রয়েছেন। আশা করা যায় গোলাপি বলে ঐতিহাসিক টেস্টর সময় ইডেনে হাজির থাকবেন তিনি।