সুপর্ণা সিনহা রায়, কলকাতা: চারিদিকে হই হই৷ মা আসবেন সপরিবারে৷ গণেশ কার্তিক লক্ষী সরস্বতী থাকবে চারটে দিন৷ তবে শুধুই কি এবঙ্গে? না৷ কৈলাস থেকে ত্রিনেত্রা পাড়ি দিয়েছেন বিদেশের পথেও৷

রাস্তা অনেক দূর৷ তাই আগে ভাগেই জাহাজে চড়ে বেরিয়ে পড়েছেন শিবদূতী৷ কোথাও আবার ছেলেমেয়ে নিয়ে তিনি উড়োজাহাজে চড়েও পাড়ি দিয়েছেন৷ ইতিমধ্যেই পৌঁছেও গিয়েছেন বেশ কয়েকটি দেশে৷

আরও পড়ুন: ‘সত্যান্বেষণের দিকে আরেক ধাপ’ এগোলেন আবীর

মায়ের এই বিদেশ পাড়ির তোড়জোড় শুরু হয়ে যায় বেশ আগে থেকে৷ কুমোরটুলির প্রতিমা শিল্পী কৌশিক ঘোষও বেশ ব্যস্ত হয়ে পড়েন এই সময়টায়৷ আর্য্যাকে সপরিবারে সুরক্ষিত সাত সমুদ্র তের নদী পার করে বিদেশের মাটিতে পৌঁছে দিতে হবে যে৷

টানা চারটে জেনারেশন কুমারটুলিতে শূলধারিণীর প্রতিমা তৈরি করে চলেছেন ঘোষ পরিবার৷ সেসময় কলকাতায় ঘোড়ায় টানা ট্রাম চলত৷ যেসময় শুধু কলকাতার বনেদি জমিদার পরিবারেই মাহেশ্বরী মহামায়ার পুজো হত৷ কৌশিকের বাবা অমরনাথ ঘোষের হাত ধরে এই পরিবারের গড়া মহিষাসুরমর্দিনী চণ্ডমুণ্ডবিনাশিনীর মুর্তি পাড়ি দেয় বিদেশে৷ তার পর এই জেনারেশনে কৌশিক দায়িত্ব নিয়েছেন৷

আরও পড়ুন: গঙ্গার ভাঙনে ভিটে ছাড়া ৫০ টি পরিবার

কৌশিক জানালেন “এখনও পর্যন্ত এখান থেকে আমার বত্রিশটা ঠাকুর গিয়েছে৷ USA গিয়েছে ছয় সাতটা৷ UK গিয়েছে পাঁচ ছটা৷ জার্মানি, কানাডা ইতালি দুবাই সিঙ্গাপুর নিউজিল্যান্ড অস্ট্রেলিয়াও গিয়েছে৷” একটু হেসে বললেন “পৃথিবীর সব জায়গাতেই৷”

বিদেশে এক একটি ক্লাব প্রতি বছরই প্রতিমা নিয়ে যায় না৷ একবার প্রতিমা নিয়ে যাওয়ার পর পাঁচ বছর সেই প্রতিমারই সাজসজ্জা সম্পূর্ণ বদলে ফেলে পুজো করা হয়৷ পাঁচ বছর পর মা কে ভাসান দিয়ে আবার পরের বছর নতুন ঠাকুর নিয়ে যাওয়া হয়৷ সত্যানন্দস্বরূপিণীর বিদেশের মাটিতে পা রাখার পরেই এবার পালা বাঙালি ক্লাব গুলিতে পৌঁছনো৷ কোথাও কোথাও আগে ভাগেই প্রতিমা পৌঁছে গিয়েছে৷

আরও পড়ুন: পরিবেশ সচেতনতায় প্রতিযোগিতার আয়োজন

রানীর দেশেও পৌঁছে গিয়েছেন তিনি৷ লন্ডনে উমা৷ ইতিমধ্যেই ক্যানাডাতেও পৌঁছে গিয়েছেন দশভূজা৷ হল্যান্ডে হইচই ক্লাবের পুজো এবছর দুবছরে পা রেখেছে৷ সেখানে গত বছর গিয়েছে ঠাকুর৷ তাই এবছর আর প্রতিমা নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি ছিল না৷ তবে গত বছরের প্রতিমাকেই আবার একেবারে অন্যরকম সাজে সাজানো হবে৷

কোথায় কোথায় যাচ্ছেন না দক্ষযজ্ঞবিনাশিনী? আমেরিকা থেকে নেদারল্যান্ড কানাডা থেকে দুবাই সব বাঙালি শক্তিরুপীনির আরাধনায় মাতবেন৷ বিদেশেও স্বদেশের স্বাদ পাওয়া যাবে এই কটা দিন৷ যে স্বাদ ভাগ করে নেন বিদেশিরাও৷

আরও পড়ুন: ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে পথে নামলেন বাঁকুড়ার জেলাশাসক