লন্ডন: সত্তর বছরের বিবাহিত জীবন শেষ হয়ে গেল এক ঝটকায়! রাসেল দীর্ঘদিন যাবত স্মৃতিভংশ রোগে ভুগছিলেন৷ খাতায় কলমে তাঁর বয়স ৯৩৷ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন৷ কিন্তু সম্প্রতি তিনি তাঁর স্ত্রীকেও চিনতে পারছিলেন না৷ ৯১বছর বয়সে এসে স্বামীর তরফ থেকে এমন প্রত্যাখান পেয়ে মর্মাহত তিনি৷ আর তারপরেই সেই শোকে তিনিও অসুস্থ হয়ে পরেন৷ আর তারপরই ইহলোক ত্যাগ করেন তিনি৷ আর স্ত্রীয়ের মৃত্যুটা হয়তো অসুস্থতার মধ্যেও আঁচ করতে পেরেছিলেন তাঁর স্বামী৷ তাই স্ত্রীয়ের মৃত্যুর ঠিক চার মিনিট কাটতে না কাটতেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পরলেন রাসেল৷

রাসেল মাগমা কেয়ার হোমে ভর্তি ছিলেন৷ রাসেলের পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, তাঁর স্ত্রী ভেরা তাঁকে রোজই দেখতে যেতেন৷ কিন্তু শেষ কিছুদিন ধরে আর তাঁকে চিনতে পারছিলেন না তাঁর স্বামী৷ এই নিয়ে ভেরা মানসিক অবসাদেও ভুগছিলেন৷ এমনকি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করার আগে অবধিও তিনি তাঁর স্বামীর কথাই জিজ্ঞেস করেছেন৷

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালিন ভেরা এবং রাফেল গাঁটছড়া বাঁধে৷ তারপর থেকে কেউ কারও হাত এক মুহূর্তের জন্যও ছাড়েননি৷ এমনকি মৃত্যুটাও তাদের একসঙ্গেই হল৷ ভালোবাসার টান হয়তো এতটাই মজবুত৷ বিশ্বের ভালোবাসার ইতিহাসে খোদাই হয়ে থাকবে এই ব্রিটিশ দম্পতির গল্প৷