লন্ডন: ব্রিটেনের আকাশে ইউএফও! আন-আইডেন্টিফায়েড অবজেকট! ভিনগ্রহের প্রাণীদের অস্তিত্ব নিয়ে ফের একবার বিতর্ক উসকে দিল৷ সকালে সাতসমুদ্র পাড়ের আকাশে মাত্র তিন মিনিটের একটি বলয়কে ঘিরে উত্তেজনা চরমে৷ প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি সত্যিই ভিনগ্রহের অধিবাসীরা মহাকাশে  বিচরণ করছে৷

ইংল্যাণ্ডের আকাশে একটি কালো বলয় দেখতে পায় যায়৷ এক-দু’জন নয়, এই কালো বলয় প্রত্যক্ষ করে কমপক্ষে ১-জনের বেশি নাগরিক৷ এমনকি, এই বলয়ের ছবিও ক্যামেরা বন্দি করেছেন অনেকে৷ সন্দেহভাজন এই বলয়কে সকলেই আন-আইডেন্টিফায়েড অবজেক্ট বা ইউএফও বলেই দাবি করছে৷ সন্দেহ কিন্তু উড়িয়ে দেয়নি ইউএফও বিশেষজ্ঞরা৷ তাঁরা বলছেন, আকাশে দৃশ্যমান কালো বলয়টি ইউএফও হতেই পারে৷ এছাড়া, অন্য কোনও কিছু হওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে মনে হচ্ছে৷

এদিনে ইংল্যান্ডের আকাশে দেওয়া দেওয়া সন্দেহভাজন বলয়ের ছবি নিজের আইফোনের ক্যামেরায় বন্দি করেছে ১৬ বছর বয়সী জর্জিনা৷ তার তোলা এই ছবি এদিন ইন্টারনেটের মাধ্যমে ছড়িয়ে গিয়েছে বিশ্বজুড়ে৷ তার পরেই হইচই পড়ে যায়৷ এই ব্ল্যাক রিং-কে ইউএফও বলেই দাবি করছে অধিকাংশ মহল৷ পরে ব্রিটেনের বিভিন্ন সংবাদ  সংস্থাকে জর্জিনা জানিয়েছে, সে এর আগে আকাশে কোনওদিন এমনটা দেখেনি৷ তার মনে হয়েছে, এই ব্ল্যাক রিং-টিতে কোনও একটা রহস্য লুকিয়ে আছে৷ সেই আগ্রহে সে তার আইফোনের ক্যামেরায় ছবিটি তুলে রেখেছে৷ সে আরও জানিয়েছে, কালো বলয়টি খুব বেশি সময় দেখা যায়নি, মাত্র মিনিট তিনেক দেখা গিয়েছে৷

অন্যদিকে, একপক্ষ এই কালো বলয়কে ইউএফও বলে দাবি করলেও, অন্য একপক্ষের মতে ওই কালো বলয় ইউএফও হতে পারে না৷ আকাশে কোনও কীটপতঙ্গের একটা দল এমনভাবে বিচরণ করছিল, যা দেখে মনে হয়েছে একটা কালো বলয়৷ তবে, মতামত চাই হোক না কেনও জর্জিনার তোলা ছবিকে ঘিরে আন-আইডেন্টিফায়েড অবজেক্ট এবং ভিনগ্রহবাসীর অস্তিত্ব নিয়ে নানা প্রশ্নের মুখে ফেল দিয়েছে৷

Comments are closed.