মাদ্রিদ: ইচ্ছে করে কার্ড দেখে বড়সড় শাস্তির মুখে রিয়াল মাদ্রিদের তারকা ডিফেন্ডার তথা দলনায়ক সার্জিও রামোস৷ চেয়েছিলেন একটি ম্যাচ বাইরে থেকে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে নতুন উদ্যমে শুরু করতে৷ কিন্তু নিয়ম ভেঙে উয়েফার শাস্তর খাড়ায় দু’টি ম্যাচ খোয়াতে চলেছেন তিনি৷

আরও পড়ুন: গোলকিপারের অভাবনীয় বিদ্রোহে লিগ কাপ হাতছাড়া চেলসির

নকআউটের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে যাতে কার্ড সমস্যায় বাইরে থাকতে না হয়, তা নিশ্চিত করতেই আয়াক্সের বিরুদ্ধে প্রথম লেগের প্রি-কোয়ার্টারে ইচ্ছে করে হলুদ কার্ড দেখেন৷ পরে তিনি স্বীকারও করে নেন শেষ ম্যাচে তাঁর হলুদ কার্ড দেখার পিছনে বিশেষ উদ্দেশ্য ছিল৷ রামোসের মনোভাব জানতে পেরে উয়েফার শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি তাঁকে শাস্তি হিসাবে দু’টি ম্যাচে নির্বাসিত করে৷ যার অর্থ, আয়াক্সের বিরুদ্ধে প্রি-কোয়ার্টারের ফিরতি লেগে তো নয়ই, বরং শেষ ষোলোর টিকিট অর্জন করলে কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগেও খেলতে পারবেন না রিয়াল অধিনায়ক৷

আরও পড়ুন: পঞ্চবাণে শীর্ষস্থান দখলে রাখল লিভারপুল

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নিয়ম অনুযায়ী টুর্নামেন্টের তিন ম্যাচে হলুদ কার্ড দেখলে একটি ম্যাচ খেলতে পারবেন না সংশ্লিষ্ট ফুটবলার৷ রামোস গ্রুপ লিগের দু’টি ম্যাচে হলুদ কার্ড দেখেছিলেন৷ সুতরাং নকআউটে একটি হলুদ কার্ড দেখলেই পরের ম্যাচে ছিটকে যেতে হত রামোসকে৷ রিয়াল অধিনায়ক চাননি কোয়ার্টার ফাইনাল অথবা সেমিফাইনালের মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দল তার এভাব টের পাক৷ তাই তুলনামূলক দূর্বল আয়াক্সের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় লেগের প্র-কোয়ার্টার ফাইনালে মাঠের বাইরে থাকতে চেয়েছিলেন তিনি৷

আরও পড়ুন: রিয়ালকে উড়িয়ে ফাইনালে বার্সেলোনা

গত বছর সেপ্টেম্বরে গ্রুপ লিগের ম্যাচে এএস রোমার বিরুদ্ধে হলুদ কার্ড দেখেন রামোস৷ পলে অক্টোবরে ভিক্টোরিয়া প্লজেনের বিরুদ্ধেও হলুদ কার্ড দেখতে হয় তাঁকে৷ সেদিক থেকে আয়াক্সের বিরুদ্ধে প্রি-কোয়ার্টারের প্রথম লেগে রেফারি তাঁকে হলুদ কার্ড দেখানোয় ফিরতি লিগে এমনিতেই মাঠে নামতে পারতেন না রামোস৷ তবে ইচ্ছাকৃত কার্ড দেখা যেহেতু নিয়ম বিরুদ্ধ, তাই উয়েফা তাঁকে আরও বড়সড় শাস্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়৷ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দু’টি ম্যাচ কেড়ে নেওয়া হয় তাঁর কাছ থেকে৷