মুম্বই: মহারাষ্ট্রে রাজনৈতিক নাটক জারি রয়েছে এখনও। বিধানসভার মেয়াদ ফুরোলেও বিজেপি- শিব সেনা সংঘাতে সরকার গঠন সম্ভব হয়নি এখনও। রবিবার থেকে সেই নাটকে নতুন মোড়।

এতদিন পর্যন্ত আদিত্য ঠাকরের নামই উঠে আসছিল মুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য। মোড় ঘুরে এবার উদ্ধব ঠাকরের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার সম্ভাবনা। এনসিপি অন্তত এমনটাই চাইছে বলে সূত্রের খবর। জানা যাচ্ছে, এনসিপি-র হাত ধরেই মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন করতে চলেছে শিব সেনা। সোমবার বিকেল ৫টায় সরকার গঠনের কথা ঘোষণা হবে বলেও সূত্রের খবর।

রবিবার বিজেপি সাফ জানিয়ে দেয় যে সংখ্যা না থাকার কারণে তারা সরকার গঠন করবে না। এরপরই দ্বিতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে রাজ্যপাল সরকার গঠনের বার্তা দেন শিব সেনাকে। তারপর থেকেই চলছে দফায় দফায় বৈঠক। এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি, শিব সেনা নেতারা কংগ্রেসের সঙ্গেও কথা বলছেন। কারণ এই মুহূর্তে কংগ্রেসের সঙ্গে রয়েছে এনসিপি।

শোনা যাচ্ছে, এনসিপি ও শিব সেনার মধ্যে যে ডিল হয়েছে, তাতে মুখ্যমন্ত্রী পদ পাবে শিব সেনা আর উপমুখ্যমন্ত্রী হবে এনসিপি থেকে। এনসিপি চাইছে আদিত্য নয়, উদ্ধবই হন মুখ্যমন্ত্রী। আর উপ মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন এনসিপি-র অজিত পাওয়ার।

এদিন এনডিএ ছাড়ার ইঙ্গিত দিয়ে সকালেই মোদীর মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা শিব সেনা নেতা অরবিন্দ সাওয়ন্ত।

রবিবার সন্ধেয় সাংবাদিক বৈঠক করে বিজেপি সাফ জানিয়ে দিয়েছে যে তারা সরকার গঠন করতে পারবে না। সরকার গঠনের মতো প্রয়োজনীয় সংখ্যা তাদের হাতে নেই। ফলে তারা সরকার গঠন করতে রাজি নয়। জানিয়েছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি চন্দ্রকান্ত পাটিল।

রবিবারেই মহারাষ্ট্রের বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়ণবিস এবং অন্যান্য বরিষ্ঠ বিজেপি নেতারা সন্ধ্যায় রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে ক্ষোভ উগরে দেন। বিজেপি চাইলেও সরকার গড়ার ক্ষেত্রে শিব সেনার সহযোগিতা পাচ্ছেন না বলেও রাজ্যপালের কাছে নালিশ করেন তাঁরা। আর তাই সরকার গড়তে অস্বীকার করে বিজেপি। সাংবাদিক সম্মেলন করে তা জানিয়েও দেয় তাঁরা। আর এর কয়েক ঘণ্টা পরেই শিবসেনা নেতৃত্বকে ডেকে পাঠান রাজ্যপাল। কথা বলে জানতে চান সরকার গড়ার ক্ষেত্রে কোন কোন দিক খোলা রয়েছে। সরকার গড়তে শিবসেনারও যে সদর্থক ভূমিকা নেওয়া প্রয়োজন তাও মনে করিয়ে দেন রাজ্যপাল।