নয়াদিল্লি: সারা দিনের ব্যস্ততার পর সঙ্গীর সঙ্গে উবের ক্যাবে করে ফেরেন? আর তখন সঙ্গীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ হতে মন চায়? খবরদার না। এবার থেকে ভুলেও উবের ক্যাবে সঙ্গীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হবেন না। ঘনিষ্ঠ অবস্থায় একবার যদি চালকের চোখে পড়ে যান তাহলেই নেমে যেতে হবে গাড়ি থেকে।

গাড়ির চালক ও যাত্রীদের জন্য এরকমই কিছু নিয়মাবলী তৈরি করল উবের ক্যাব। এছাড়াও গাড়ির দুলুনিতে যদি বমির অভ্যেস থেকে থাকে, তাহলে এবার থেকে উবের ক্যাবে চড়ার আগে ওষুধ খেয়ে উঠতে হবে যাতে বমি না হয়। বিশেষ করে কোনও যাত্রী যদি মদ্যপ হয়ে গাড়িতে উঠে বমি করেন তাহলে সেখানেই তাকে উবের থেকে নেমে যেতে হবে।

এছাড়াও যাত্রা শেষ হওয়ার পরও যদি চালক যাত্রীর সঙ্গে অহেতুক যোগাযোগ রাখতে চান, অথবা যাত্রী চালকের সঙ্গে অযথা যোগাযোগ করেন, তাহলে তাঁর বিরুদ্ধেও যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হবে উবের-এর পক্ষ থেকে। যাত্রার সময় চাওক বা যাত্রী কেউই একে অপ্রকে ব্যক্তিগত প্রশ্ন করতে পারবেন না।

বেশ কিছুদিন ধরেই যাত্রীদের পক্ষ থেকে চালকের বিরুদ্ধে ও চালকদের পক্ষ থেকে যাত্রীদের বিরদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ জমা পড়ছিল উবেরে। সেগুলির কথা মাথায় রেখেই উবের দেশের প্রতিটি শহরে এই ব্যবস্থা চালু করছে।

কোনও যাত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ এলে, উবের সেই বিষয়টিকে তদন্ত করে দেখবে। এই সময় ওই যাত্রীর উবের অ্যাকাউন্ট সাময়িক ভাবে বন্ধ রাখা হবে। এই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতে থাকলে এবং চালকের সঙ্গে সহযোগিতা না করলে পুরোপুরি ভাবে ওই যাত্রীর অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দেওয়া হবে। এমনই উবেরের এই নতুন নিয়মাবলীতে বলা আছে।

এই নিয়মাবলী ভারতের ১০ টি ভাষায় অনুবাদ করা আছে। গাড়ির মধ্যেই যাত্রীরা অনেক সময় খাবারের প্যাকেট। সিগারেটের ছাই ফেলে নোংরা করেন। এই ধরনের অভ্যেস আটকাতেও তৈরি হয়েছে এই নিয়মাবলী। এছাড়াও অনেকসময় চালককে নির্দিষ্ট ও সীমিত গতির থেকে জোরে গাড়ি চালানোর জন্য জোর করা হয়। এই নিয়মাবলীর সাহায্যে এড়ানো যাবে এটিও।

চালকদের জন্য রয়েছে নিয়ম। যেমন যদি চালক বারবার যাত্রীকে প্রত্যখায়ন করে তাহলে তাঁর বিরুদ্ধেও রয়েছে ব্যবস্থা। দু’পক্ষ কেই সামাল দিতে উবের এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ