টোকিও: ধেয়ে এল এ শতাব্দীর ভয়ঙ্করতম ঘূর্ণিঝড় ‘হাগিবিস’। যার জেরে সপ্তাহের শেষের দিনে থমকে গেছে জাপানের ব্যস্ততম জনজীবন। এই ‘হাগিবিস’ টাইফুন জাপানের মূল ভূখণ্ডেই আছড়ে পড়তে চলেছে বলে জানিয়েছে জাপানের আবহাওয়া দফতর।

‘হাগিবিস’-এর দাপটে ইতিমধ্যে একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। পাশাপাশি বেশ কয়েকজনের আহত হবার খবরও পাওয়া গিয়েছে। জানা গিয়েছে, গাড়ি করে যাওয়ার সময় হাওয়ার দাপটে উলটে যায় গাড়ি। যার ফলে মৃত্যু হয় ৪৯ বছরের এক ব্যক্তির। অন্যদিকে ঝড়ের দাপটে আপাতত আহতের সংখ্যা ৫ জন। আহতদের মধ্যে তিনজন শিশুও রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

এই মুহূর্তে জাপানের অবস্থা কার্যত থমথমে। বাতিল করা হয়েছে বেশ কয়েকটি বিমানের উড়ান। রাস্তাঘাটেও লোকজন অপেক্ষাকৃত অনেকটাই কম। জানা যাচ্ছে, ধাবমান টাইফুনের গতিবেগ হতে পারে প্রায় ১৯৫ কিমি প্রতি ঘন্টা। যার জেরে আতঙ্কিত সাধারণ মানুষ। এই ঝড় নিয়ে কিছুটা চিন্তিত রয়েছে নাসাও। নাসার তরফে জানানো হয়েছে এটাই শতাব্দীর ভয়ঙ্করতম ঘূর্ণিঝড় হতে চলেছে।

জাপানের সাধারণ মানুষ ইতিমধ্যেই ঝড়ের আশঙ্কায় প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। বিভিন্ন মার্কেট থেকে প্রচুর পরিমাণে খাদ্য দ্রব্য নিজেদের বাড়িতে নিয়ে মজুত করতে শুরু করে দিয়েছেন সকলে। পাশাপাশি আশঙ্কা করা হচ্ছে, টাইফুনের দাপটে বৃদ্ধি পেতে পারে সমুদ্রের জলের মাত্রাও। সমুদ্রে ৪৫ ফুট ঢেউ ওঠার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, এই মরশুমে জাপানে এটি ১৯ তম টাইফুন। গত বছরেও ভয়ঙ্করতম সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে পড়েছিল জাপান। মৃত্যু হয়েছিল বহু মানুষের। কিন্তু এবার যেন কোনও প্রাণহানি না হয় সে জন্য আগে থেকেই কোমর কষে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে জাপানের নানান বিভাগ। সে দেশের প্রধানমন্ত্রী সিনজো আবে ‘হাগিবিস’ এর মোকাবিলায় সবরকম ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।