দেবময় ঘোষ, কলকাতা : রাজ্য থেকে বিজেপির দুই সাংসদ ডা. সুভাষ সরকার এবং ডা. সুকান্ত মজুমদার কল্যাণীর এইমস হাসপাতাল -এর কমিটিতে থাকবেন। ৩ জুলাই সংসদে একটি মোশন অনুযায়ী দেশের দশটি এইমস হাসপাতালের প্রতিটিতে দুই জন করে সাংসদ থাকবেন-তা ঠিক হযেছে। নয়াদিল্লির এইমস থেকে সম্প্রতি স্পষ্ট করা হয়েছে যে, এইমসের কল্যাণী ক্যাম্পাসের কমিটিতে এই দুই চিকিৎসক সাংসদের নাম রযেছে। তাঁরা নির্বাচিত হযেছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য, কল্যাণীর প্রকল্প রাজ্য সরকারেরই সাফল্য – এই দাবি দীর্ঘদিন ধরেই করে আসছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। কল্যাণীতে যে জায়গায় এইমস হাসপাতাল গড়ে উঠেছে, সেখানে রাজ্য সরকারই জমি দিযেছে এবং তা রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্যশহর বা হেলথ সিটি’র মধ্যেই পড়ছে। সেক্ষেত্রে বিজেপির দুই সাংসদের কমিটিতে প্রবেশ রাজনৈতিক তরজার ক্ষেত্র প্রস্তুত করল বলে মনে করছেন অনকে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক।

আগামী মাস থেকেই পশ্চিমবঙ্গের প্রথম এইমস হাসপাতালের প্রথম ব্যাচের ক্লাস শুরু হবে। পরীক্ষা হযে গিযেছে। রাজধানীর এইমস থেকে প্রতিনিধিদল কল্যাণীর ক্যাম্পাসে ঘুরে গিযেছেন। ক্যাম্পাসের কাজও চলছে। ৫০ জন ছাত্র-ছাত্রী এসবিবিএস পড়বেন এইমসে। তবে ওয়াকিবহালমহলের বক্তব্য, রাজ্যের মেডিকেল কলেজগুলিতে শিক্ষকের অবাব রযেছে। সারা ভারতেই এইমসে শিক্ষকের অভাব রযেছে। কল্যাণীতেও এই সমস্যা হবে।

১৮০ একর জমির উপর যে হাসপাতাল কল্যাণীতে গড়ে উঠেছে, সেখানে ওপিডি বা আউট পেসেন্ট ডিপার্টমেন্ট থাকবে কি না সন্দেহ দেখা দিযেছিল। কিন্তু পরবর্তি ক্ষেত্রে পরিশ্কার হযেছে যে, ওপিডি শুরু থেকেই থাকবে। এই হাসপাতাল তৈরি করতে খবচ হবে ১৭৫৪ কোটি। রাযগঞ্জে এইমস বিশ বাঁও জলে। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গ কল্যাণীতে এইমস পেয়েই গিয়েছে।