coronavirus_death

প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর :ফের করোনার থাবা। এবার উত্তর বারাকপুর পুরসভার ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে করোনায় আক্রান্ত দুই প্রতিবেশী বাড়ির দুই সদস্য। মাত্র দুদিন আগেই দিল্লি ফেরত এক পরিযায়ী শ্রমিক এই একই ওয়ার্ডে করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। এবার ওই একই এলাকায় নতুন করে এক ব্যাংক কর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

তবে একই ওয়ার্ডে দুটি ঘটনা ঘটলেও তা কখনই গোষ্ঠী সংক্রমন নয়, দাবি উত্তর বারাকপুর পুরসভা কর্তৃপক্ষের। উত্তর ২৪ পরগনায় ক্রমেই বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা । উত্তর বারাকপুর পুরসভার ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের শান্তশ্রী পল্লীতে একই পাড়ায় ফের দ্বিতীয় একজনের শরীরে মিলেছে করোনার জীবাণু। এবার করোনায় আক্রান্ত হলেন ৫৬ বছর বয়সী এক ব্যাংক কর্মী।

তাকে ইতিমধ্যেই কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে । ওই ব্যাংক কর্মী কলকাতার় একটি ব্যাংকে চাকুরীরত। সম্প্রতি জ্বরে ভুগতে শুরু করেন তিনি । এরপরই তার পরিবারের সদস্যরা তাকে কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন । সেখানে তার লালা রসের নমুনা পরীক্ষা করা হয় । বুধবার ওই ব্যাংক কর্মীর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে।

বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসা চলছে ওই ব্যাংক কর্মীর। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সম্প্রতি উত্তর বারাকপুর পুরসভার এই ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে দিল্লি ফেরত এক পরিযায়ী শ্রমিক করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এবারও ঘটনা উত্তর বারাকপুর পুরসভার সেই একই ওয়ার্ডের। ফলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে ওই ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের মধ্যে ।

তবে উত্তর বারাকপুর পুরসভার পুর প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য অভিজিৎ মজুমদার এই ঘটনাকে গোষ্ঠী সংক্রমন বলতে নারাজ।

তিনি বলেন, “কাকতালীয় ভাবে দুটি ঘটনা একই ওয়ার্ডের হলেও এর সঙ্গে গোষ্ঠী সংক্রমনের কোনও বিষয় নেই। একজন দিল্লি ফেরত, অন্যজন কলকাতায় চাকুরীতে যেতেন। দুজনের দুই ভাবে কোভিড সংক্রমন হয়ে থাকতে পারেন। এলাকার বাসিন্দাদের সচেতন থাকতে হবে। আমরা পুরসভা গত ভাবে মানুষকে সচেতন করছি। গোটা এলাকা জীবাণু মুক্ত করা হয়েছে। এই এলাকাটি কোয়ারেন্টাইন জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। সাধারন মানুষের উচিত সরকারি নির্দেশ মেনে চলা । আমরা এলাকার বাসিন্দাদের বলেছি ঘরে থাকতে। স্বেচ্ছাসেবকেরা এই এলাকার বাসিন্দাদের নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেবে তাদের বাড়িতে ।”

এদিকে একই পাড়ায় দুই প্রতিবেশীর বাড়িতে দুই সদস্য করোনা আক্রান্ত হওয়ায় এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে আশঙ্কা বেড়েছে। শান্তশ্রী পল্লীতে সকলেই বাড়িতে গৃহবন্দী রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প