ইসলামাবাদ: বর্তমানে জেলে আছেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। এবার তাঁর দুই আত্মীয়কে বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হল। তাঁদের বিরুদ্ধে আর্থিক প্রতারণার মামলা চলছে বলে জানা গিয়েছে।

হজে যাওয়ার জন্য সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিলেন তাঁরা। ইউসুফ আব্বাস ও আব্দুল আজিজ আব্বাস নামে নওয়াজ শরিফের দুই ভাইপোকে বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়।

পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবেলিটি ব্যুরো বা ন্যাবের তরফ থেকে নির্দেশ পেয়েই মদিনা যাওয়ার বিমান থেকে আল্লামা ইকবাল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে নামিয়ে দেওয়া হয় তাঁদের।

জানা গিয়েছে, যেহেতু এই দু’জনের নাম প্রভিশনাল ন্যাশনাল আইডেনটিটি লিস্টে রয়েছে,তাই তাঁদের নামতে বাধ্য করা হয়েছে। এই লিস্টে নাম থাকলে তারা দেশের বাইরে যেতে পারেন না সরকারে অনুমতি ছাড়া। সম্প্রতি ন্যাব ই ওই তালিকায় এই দু’জনের নাম তুলেছে যাতে তারা দেশ ছেড়ে যেতে না পারে।

এই দুই ভাই চৌধুরী সুগার মিলের শেয়ার হোল্ডার। তারা ন্যাবের তদন্তে জবাব দিতে পারেনি। দু’জনের বিরুদ্ধেই তাই আয়ের উৎস নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। এই একই মামলায় প্রশ্নের মুখে পড়েছেন নওয়াজ শরিফ , শাহবাজ শরিফ মরিয়ম নওয়াজ শরিফ, হামজা শাহবাজ ও আরও দু’জন।

আর্থিক কেলেঙ্কারি সংক্রান্ত মামলায় সাত বচরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে নওয়াজ শরিফকে। আপাতত জেলে আছেন তিনি। ২০১৮-র ২৪ ডিসেম্বর থেকে লাহোর জেলে রয়েছেন ইনি। যদিও শরিফ ও তার পরিবার এই অভিযোগের কথা বরাবরই অস্বীকার করে এসেছে।