ঢাকা: মানবতা বিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত দুই রাজাকারকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা শোনালো বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ক্রাইম ট্রাইব্যুনাল৷ দণ্ডপ্রাপ্ত দু’জনের নাম সৈয়দ মহম্মদ হুসাইন ও মোসলেম প্রধান৷ দুজনের বিরুদ্ধে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ(বাংলাদেশের স্বাধীনতা লড়াই) চলাকালীন গণহত্যার অভিযোগ প্রমাণ হয়েছে৷

- Advertisement -

পাকিস্তানি সেনার হয়ে বিভিন্ন সময়ে যুদ্ধাপরাধে জড়িত ছিল সৈয়দ মহম্মদ হুসাইন ও মোসলেম প্রধান৷ দু’জনের বিরুদ্ধে মোট ৬২ জনকে খুন ১১ জনকে অপহরণ ও আটক এবং ২৫০টি বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের অভিযোগ আনা হয়েছিল৷ দোষী সৈয়দ মহম্মদ হুসাইন পলাতক৷ সে পালিয়ে আশ্রয় নিয়ে মালয়েশিয়ায়৷

১৯৭১ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তীব্র সংঘর্ষ চলাকালীন বাংলাদেশি মুক্তিযোদ্ধাদের প্রচণ্ড নির্যাতন চালিয়েছিল দুই রাজাকার৷ তাদের অত্যাচারের কেন্দ্র ছিল তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের কিশোরগঞ্জ৷

মামলায় বলা হয়েছে, স্থানীয় নিকলীর দামপাড়া গ্রাম ও নিকলী থানা ভবন, সদরের মহাশশ্মান এলাকায় সুধীর সূত্রধরসহ ৩৫ জনকে খুন, ছয় মহিলাকে ধর্ষণ করেছে সৈয়দ মহম্মদ হুসাইন৷

বিভিন্নসময় মুক্তিযোদ্ধাদের মৃতদেহ রিকশায় করে চাপিয়ে এলাকা ঘোরানো হত৷ এসবের মদত-কারী হিসেবে দুই রাজাকারকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা শোনানো হয়েছে৷ ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে পাল্টা আবেদন করতে পারবে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত আসামীরা৷