- Advertisement -

ইম্ফল:মণিপুরে আইএস নাশকতার ছক বানচাল৷ অসম-মণিপুর সীমান্ত থেকে ধৃত দুই ইসলামিক স্টেট জঙ্গি৷ এদের নাম নাজির মহম্মদ ও আবু বকির৷ অসম রাইফেলসের হাতে তারা ধরা পড়েছে৷ ধৃতরা তামিলনাড়ুর বাসিন্দা৷ তাদের কাছ থেকে ১৪টি সিম কার্ড ও ৭৫ হাজার টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ৷ উদ্ধার করা হয়েছে বেশকিছু বিদেশী মূদ্রা৷

জানা গিয়েছে, দুই গত ৯ মার্চ জঙ্গি কলকাতা থেকে রওনা দিয়েছিল৷ অসম হয়ে ১০ মার্চ তারা নাগাল্যান্ডের অন্যতম শহর ডিমাপুরে পৌঁছায়৷ সেখান থেকে ভারত-মায়ানমার সীমান্তের মণিপুরের মোরে শহরে যাওয়ার তাল করেছিল তারা৷ মোরে শহরটির ওপারে মায়ানমারের টামু৷ সীমান্তের দু’দিকেই স্থানীয় বাসিন্দারা আসা যাওয়া করেন৷

এবার মোদীর রাজ্যে ধরা পড়ল আইএস

- Advertisement -

দুই আইএস জঙ্গি কী কারণে সীমান্ত শহর মোরে যাচ্ছিল তা জানতে জেরা করছেন গোয়েন্দারা৷ জেরায় উঠে এসেছে, এর আগেও মণিপুরে এসেছিল দুই আইএস জঙ্গি৷

২০১৪ সালের বর্ধমানের খাগড়াগড় বিস্ফোরণের পর থেকে পশ্চিমবঙ্গে জামাত উল মুজাহিদিন জঙ্গি সংগঠনের বাড়বাড়ন্ত প্রকাশ্যে আসে৷ তখনই জানা গিয়েছিল, পশ্চিমবঙ্গ ও অসমকে ভিত্তিকে করে জেএমবি জঙ্গিরা বাংলাদেশে নাশকতার বিশাল পরিকল্পনা করেছে৷ তাদের লক্ষ্য প্রতিবেশী রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারকে উৎখাত করা৷ একাধিক সূত্র থেকে পশ্চিমবঙ্গ ও নিম্ন অসম থেকে বিভিন্ন জঙ্গি ডেরার সন্ধান পায় জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এনআইএ)৷

২০১৬ সালে বাংলাদেশ ঘটে যায় সাম্প্রতিক কালে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম ভয়াবহ গুলশন হামলা৷ সেই হামলায় ২০ জন বিদেশী নাগরিককে খুন করা হয়৷ তার দায় নিয়েছে ইসলামিক স্টেট৷ এই হামলার তদন্তে উঠে আসে আইএস বাংলাদেশের বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের মদতে ভারতে নাশকতার জাল বিছিয়েছে৷ গোয়েন্দা রিপোর্টে বলা হয় জঙ্গিদের মূল টার্গেট পশ্চিমবঙ্গ ও অসম৷ এছাড়াও উত্তর পূর্ব ভারতের অন্যান্য রাজ্য গুলিতেও নাশকতার ছক কষেছে জঙ্গিরা৷

তামিলনাড়ুর বাসিন্দা দুই আইএস জঙ্গি মণিপুর সীমান্তে ধরা পড়া ও তাদের মায়ানমার সীমান্ত শহর মোরে-তে যাওয়ার পরিকল্পনায় উদ্বিগ্ন গোয়েন্দা বিভাগ৷