স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: তান্ত্রিকের মাধ্যমে যজ্ঞ করে খুন করা হয়েছে পরিক্ষীত মণ্ডল (১৮) নামে এক বালককে৷ এমনই চাঞ্চল্য অভিযোগ উঠেছে মুর্শিদাবাদের বহরমপুর থানার কাশিম বাজারের দিঘীর পাড় এলাকায়।

গত ৯ সেপ্টেম্বর কৌশিকি অমাবস্যার দিন যজ্ঞে সামিল হয়েছিল পরিক্ষীত মণ্ডল নামে ওই বালক৷ সেই সময়ে তার সঙ্গে ছিল পাপ্পু ও রাজা নামে দুই বন্ধু৷ তান্ত্রিকের নাম কৃষ্ণ৷ সেই তান্ত্রিকের মাধ্যমেই তারা সবাই মিলে যজ্ঞ করছিলেন বহরমপুরের ফাঁসিতলা এলাকায়৷ পরিক্ষীতের পরিবারের অভিযোগ, সেই রাতেই বাড়িতে এসে অসুস্থ হয়ে পরে পরিক্ষীত৷ এমনকি সে জানায় তার শরীর থেকে রক্ত নিয়ে ভূত ও পেত্নীদের দেওয়া হয়েছে৷

তড়িঘড়ি মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজে তাকে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করা হয়৷ বারবার চিকিৎসকরা জানান, পরিক্ষীত সুস্থ রয়েছে৷ তার কোনও রোগ নেই৷ কিন্তু পরিক্ষীত ‘সামনে কেউ দাঁড়িয়ে রয়েছে’ এমন কথা বলে অসুস্থ হয়ে পড়ত বলে জানিয়েছে পরিবার৷

কয়েক দিন আগে তাকে তার মামার বাড়ি শক্তিপুর রেখে আসেন তার বাড়ির লোক৷ সেখানেও সে অসুস্থ হয়ে পরে বলে জানা গিয়েছে৷ ফের তাকে ভরতি করা হয় মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজে৷ গত শনিবার সেখানেই তার মৃত্যু হয়৷ মঙ্গলবার পরিক্ষীতের বাবা সমর মণ্ডল ও মা লক্ষ্মী মণ্ডল সাংবাদিকদের জানান, তাঁরা বহরমপুর থানায় গিয়ে পাপ্পু, রাজু ও তান্ত্রিক কৃষ্ণ এদের নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করবে৷ সেই ঘটনার তদন্তও শুরু করেছে পুলিশ৷