স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: স্বাস্থ‍্য পরীক্ষার জন্য চারদিন বন্ধ থাকবে উত্তর কলকাতার অরবিন্দ সেতু৷ বৃহস্পতিবার রাত থেকেই ওই সেতু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ অন্যদিকে হাওড়ার বঙ্কিম সেতুর একাংশ তিন দিনের জন্য বন্ধ হয়ে গেল৷ ফলে ওই এলাকায় যানজটের আশঙ্কা রয়েছে৷

হাওড়ার বঙ্কিম সেতুর মেরামতি ও স্বাস্থ্য পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেএমডিএ। এজন্য শুক্রবার ভোররাত থেকে তিনদিনের জন্য সেতুর উপর দিয়ে যান চলাচল আংশিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে। পুলিশ সূত্রে খবর, ২৩,২৪ ও ২৫ অগস্ট বঙ্কিম সেতুতে যান নিয়ন্ত্রণ করা হবে৷ হাওড়া পুলিশ কমিশনারের অফিসে এই বিষয়ে ট্রাফিক, কেএমডিএ, পুরসভা, আরটিও,ফিস মার্কেট অ্যাসোসিয়েশনসহ সব পক্ষের বৈঠকের পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে এই বিষয়ে সাংবাদিক বৈঠক করেন হাওড়ার ডিসি ট্রাফিক ওয়াই রঘুবংশী। তিনি জানান, সব ধরণের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তার দায়িত্বে পর্যাপ্ত সংখ্যক ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েন থাকবেন। কেএমডিএ জানায়,সেতুটি বর্তমানে কি অবস্থায় আছে সেটা জানার জন্য সেতুর মেরামতি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ তারপরই ডিসি ট্রাফিক জানান, মেরামতি ও স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে ২৩ অগস্ট শুক্রবার ভোর চারটে থেকে ২৫ অগস্ট রবিবার রাত ১২টা পর্যন্ত। তবে বঙ্কিম সেতু পুরোপুরি বন্ধ করা হচ্ছে না৷ শুধুমাত্র গাড়ি ঘুরপথে চালানো হবে৷ যদিও এর ফলে চাঁদমারি (বাঙালবাবু) ব্রিজের উপর যান চলাচলের চাপ কিছুটা বাড়বে।

যে যে রুট ধরে গাড়িগুলি ঘোরানো হবে তার নির্দেশিকা সাইন বোর্ডে চিহ্নিত করে দেওয়া হয়েছে৷ ট্রাফিক পুলিশ সূত্রে খবর, হাওড়া রেলওয়ে সাইড থেকে যে সব গাড়ি বঙ্কিম সেতুতে উঠে দক্ষিণ হাওড়ার দিকে যাবে সেই অংশ পুরোপুরি বন্ধ থাকবে। সরাসরি হাওড়া স্টেশন থেকে বঙ্কিম সেতুতে উঠতে পারবে না। শিবপুর-গামী গাড়ি সরাসরি হাওড়া রেলের সামনে দিয়ে শিবপুর গ্র্যান্ড ফরশো রোড ধরে চলে যাবে দক্ষিণ হাওড়ায়। পঞ্চাননতলা এবং ময়দান রুটের বাস হাওড়া স্টেশনের শরৎ স্ট্যাচু হয়ে ঈশ্বর চন্দ্র বোস রোড দিয়ে গিয়ে পঞ্চাননতলা রোড ও ময়দানে ভাগ করে দেওয়া হবে।

ময়দানে যাবে যে সব গাড়ি সেগুলো ব্রীজের নিচে মাছ বাজারের বাম দিক দিয়ে গিয়ে ময়দানে পৌঁছাবে। অপরদিকে যে গাড়িগুলো পঞ্চাননতলা রোডে যাবে, সেই গাড়িগুলো ডানদিকে গিয়ে হরিমোহন বোস রোড হয়ে চাঁদমারি ব্রীজ ধরে ফাঁসিতলা হয়ে পঞ্চাননতলা রোডে এসে পড়বে। এই ব্যবস্থায় চাঁদমারি ব্রীজে ট্রাফিক ভিড় বাড়বে। এর জন্য অতিরিক্ত ট্রাফিক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যে গাড়িগুলো সোজা গিয়ে ঘুরে বঙ্গবাসী ব্রীজের উপর উঠত, সেই গাড়িগুলো ডিএস রোড দিয়ে ঘুরিয়ে মহাত্মা গান্ধী রোড দিয়ে বাঁ দিকে গিয়ে আবার বঙ্কিম সেতুতে গাড়িগুলোকে তুলে দেওয়া হবে। পরিবর্তন করা হয়েছে অটো রুটেরও৷

অন্যদিকে স্বাস্থ‍্য পরীক্ষার জন্য চারদিন বন্ধ থাকবে উত্তর কলকাতার অরবিন্দ সেতু৷ ২২ অগস্ট বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে এগারোটা থেকে ওই সেতু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ স্বাস্থ‍্য পরীক্ষার পর ফের ২৫ অগস্ট রাত ১১ টায় খুলে দেওয়া হবে বলে জানাল পুলিশ৷ তবে যে চার দিন বন্ধ থাকবে সে দিনগুলোতে যানজট আটকাতে বিকল্প রুটের বন্দোবস্ত করেছে কলকাতা পুলিশ৷

লালবাজার ট্রাফিক পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, উল্টোডাঙা থেকে খান্নাগামী অটোকে ক্যানাল ইস্ট রোড, বেইলি ব্রিজ, ক্যানাল ওয়েস্ট রোড ধরে আসতে হবে। খান্না থেকে উল্টোডাঙাগামী অটো রাজা দীনেন্দ্র স্ট্রিট ধরে এসে বেইলি ব্রিজে উঠবে। সেখান থেকে উল্টোডাঙার দিকে যাবে। বাস রুটেও একাধিক পরিবর্তন করা হচ্ছে।

চিত্তরঞ্জন অ্যাভিনিউ ও আহিরিটোলা থেকে যে সব বাস ও মিনিবাস অরবিন্দ সেতু হয়ে উল্টোডাঙা যায়, সেগুলিকে যতীন্দ্রমোহন অ্যাভিনিউ, ভূপেন বোস অ্যাভিনিউ ধরে শ্যামবাজারে নিয়ে আসা হবে। সেখান থেকে সেগুলি সোজা আর জি কর রোড, পাতিপুকুর আন্ডারপাস হয়ে উল্টোডাঙার দিকে যাবে। একই পথেই তারা ফিরবে। শ্যামবাজারের দিক থেকে যে সব গাড়ি অরবিন্দ সেতু ধরে আসা-যাওয়া করে তাদেরও ওই একই রুটে পাঠানো হচ্ছে৷

এছাড়া,হাওড়া থেকে সল্টলেকগামী বাস কাঁকুড়গাছি, মানিকতলা, বিবেকানন্দ রোড হয়ে উল্টোডাঙা পৌঁছবে। শিয়ালদহ থেকে এ পি সি রোড হয়ে যে সব বাস অরবিন্দ সেতু ধরে যাতায়াত করে, সেগুলি নারকেলডাঙা মেন রোড, ফুলবাগান ক্রসিং, সিআইটি রোড হয়ে হাডকো যাবে। সেতু বন্ধ থাকার কারণে এই চারদিন উল্টোডাঙায় ট্রাম পরিষেবা বন্ধ রাখা হবে। যাত্রীদের যাতে অসুবিধা না হয়, সেজন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ সাইনেজ বোর্ড লাগানো হবে। সেখানে কোন গাড়ি কোন দিক ঘুরবে, তার উল্লেখ থাকবে।