বর্ধমান: মাধ্যমিক পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় আত্মঘাতী হল দুই পড়ুয়া৷ দু’জনেই গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে৷ প্রথম ঘটনাটি ঘটেছে রায়না ১ নং ব্লকের নাড়ুগ্রামে৷ দ্বিতীয়টি কালনা মহকুমা এলাকায়৷

এবছর নাড়ুগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বর্ষা মালিক(১৬) নামে এক পড়ুয়া মাধ্যমিক পরীক্ষা দেয়৷ বুধবার ফল প্রকাশের পর জানা যায়, কয়েকটি বিষয়ে সে ফেল করেছে৷ এরপর স্কুল থেকে রেজাল্ট নিয়ে বাড়ি ফিরে আসে৷ সেই সময় বাড়িতে কেউ ছিল না৷ তাই ঘরে ঢুকে গামছা দিয়ে গলায় ফাঁস লাগায় এবং আত্মহত্যা করে৷

ওদিকে দুপুরে মৃতার বাবা হারাধন মালিক বাড়ি ফিরে আসেন৷ ঘরে ঢুকে মেয়েকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান৷ এই ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে৷ জানা গিয়েছে, গতবারও মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল বর্ষা৷ সেবারও দুটি বিষয়ে ফেল করে৷ এবারও অকৃতকার্য হওয়ায় অপমানে আত্মঘাতী হয়েছে সে৷

অন্যদিকে, মাধ্যমিক পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হয় কালনা মহকুমা এলাকার ছাত্রী মিনতি বালা (১৬)। নাদনঘাট থানা এলাকার মোল্লার বিল গ্রামের বাসিন্দা মিনতি বালা বুধবার দুপুরে মায়ের সাথে একটি ইন্টারনেট ক্যাফেতে রেজাল্ট দেখতে যায়। সেখানেই রেজাল্ট খারাপের কথা শুনে ভেঙে পড়ে।

পরে বাড়ি এসে কারোর সঙ্গে কোনও কথা না বলে ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়। বেশ কিছুক্ষণ পরও দরজা খুলছে না দেখে বাবা গৌতম বালা ডাকতে যান৷ ঘরে ঢুকে দেখেন, গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে ঝুলছে মেয়ে। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।