ওয়াশিংটনঃ   আমেরিকার সঙ্গে সংঘাতের পথে হাঁটছে চিন! বিতর্কিত দক্ষিণ চিন সাগরের আকাশে মার্কিন গোয়েন্দা বিমানকে ‘তাড়া’ করল চিনা এয়ারফোর্সের দুটি যুদ্ধবিমান, এমনটাই চাঞ্চল্যকর দাবি করল আমেরিকা।  চার ইঞ্জিনের মার্কিন গোয়েন্দা বিমান ডব্লিউসি-১৩৫ কনস্ট্যান্ট ফিনিক্সের খুব কাছাকাছি চিনের দুটি যুদ্ধ বিমান চলে এসেছিল বলে চাঞ্চল্যকর দাবি আমেরিকার।  যদিও দক্ষতার সঙ্গে বিষয়তি এড়ানো সম্ভব হয়েছে বলে দাবি পেন্টাগনের।

মার্কিন নৌবাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল লনি হজ দাবি করেন,  চিনা যুদ্ধবিমান দু’টিই সুখোই এসইউ-৩০ ছিল। ।তিনি আরও বলেন, চিনা এয়ারফোর্সের একটি বিমান সেই সময়ে মার্কিন গোয়েন্দা বিমানের ওপর দিয়ে উল্টোভাবে উড়ছিল।  চিনা বিমানের ‘তাড়ার’ মুখে এক পর্যায়ে মার্কিন বিমানকে নিজ অবস্থান থেকে কয়েকশ’ ফুট নিচে নেমে যেতে বাধ্য হতে হয়।  চিনা এয়ারফোর্সের দুটি যুদ্ধবিমানের আচরণকে অপেশাদারসুলভ বলে দাবি করেছে আমেরিকা।

ইতিমধ্যে কূটনৈতিক এবং সামরিক চ্যানেলের মাধ্যমে বেজিংকে সতর্ক করা হয়েছে বলে দাবি মার্কিন নৌবাহিনীর মুখপত্রকে।  মার্কিন বিমান বাহিনীর গোয়েন্দা বিমান ডব্লিউসি-১৩৫ কনস্ট্যান্ট ফিনিক্সকে ‘পরমাণু তৎপরতা শুঁকে বের করার বিমান’ হিসেবেও অভিহিত করা হয়।  উত্তরপূর্ব এশিয়ায় এটি নিয়মিত তৎপরতা চালায় বলে স্বীকার করেছেন মার্কিন আধিকারিকরা।