মালদহ: খেলতে খেলতে দুই শিশু পাঁচ টাকার কয়েন গিলে ফেলে বিপত্তি৷ গলায় তীব্র যন্ত্রণা৷ শেষ পর্যন্ত কয়েন বার করতে হাসপাতালে ভরতি করা হয় তাদের৷ শেষ পর্যন্ত শিশু দু’টির অস্ত্রোপচার সফল হল মালদহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে৷ বর্তমানে সেখানেই তাঁরা চিকিৎসাধীন৷ ওই দুই শিশুকে সুস্থ মতো ফিরে পেয়ে চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাদের পরিবার৷

জানা গিয়েছে, চিকিৎসাধীন দুই শিশুর নাম নবাব বাহাদুর (৬) ও আরশি সাহা (৩)। মোথাবাড়ি থানার পঞ্চানন্দপুর পাগলাঘাট গ্রামের বাসিন্দা মিন্টু শেখের ছয় বছরের ছেলে নবাব বাহাদুর। সে বাড়িতে বসে কুল খাচ্ছিল। সেই সময় খেলতে খেলতে কুলের সঙ্গে একটি পাঁচ টাকার কয়েন খেয়ে ফেলে। গলায় আটকে পড়লে ছটফট করতে শুরু করে নবাব। পরিবারের লোকেরা তাকে উদ্ধার করে মালদহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে আসে।

আরও পড়ুন: গারুলিয়ায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মিছিলে নাগরিকদের ঐক্যের বার্তা

 

অন্যদিকে ওই একই দিনে ইংরেজবাজারে ঝলঝলিয়া বারাক কলোনির বাসিন্দা রঞ্জিত সাহার তিন বছরের মেয়ে আরশি সাহা। সে ঘরে মোবাইল নিয়ে খেলছিল৷ সেই সময় সেও একটি পাঁচ টাকার কয়েন হাতের সামনে পেয়ে গিলে ফেলে৷ তারও একইভাবে কয়েনটা গলায় আটকে যায়৷ পরিবারের সদস্যরা তাকে নিয়ে যায় মালদহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে৷ চিকিৎসকেরা নবাব বাহাদুর ও আরশি সাহার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে৷ তারপরই শুরু করে অস্ত্রোপচার৷ চিকিৎসকরা এই অস্ত্রোপচারে সফল হয়৷ বর্তমানে তারা সুস্থ আছে৷

মালদহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ডেপুটি সুপার ডাক্তার জ্যোতিষ চন্দ্র দাস জানান, ওই শিশু দুটিকে অস্ত্রোপচার করে গলা থেকে কয়েন বের করা হয়েছে। এই অস্ত্রোপচারের ছিলেন ডঃ খুরশেদ পারভেজ সহ জুনিয়র ডাক্তাররা। অস্ত্রোপচার সফলভাবে করা হয়েছে৷ শিশু দুটি বর্তমানে সুস্থ রয়েছে। মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের দিক থেকে এটা সত্যি একটি সাফল্যের দিক।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ