আলিপুরদুয়ার: বক্সার জঙ্গলে দেখা মিলল বিরল প্রজাতির বিলুপ্তপ্রায় প্যান্থার। যা নিয়ে রীতিমত উত্তেজনা ছড়িয়েছে বনদফতর থেকে শুরু করে বক্সা অরণ্যে ঘুরতে আসা পর্যটকদের মধ্যে। তাও আবার একটি নয়, দেখা মিলেছে একজোড়া প্যান্থারের।

একসঙ্গে এই একজোড়া ব্ল্যাক প্ন্যান্থারের ছবি ক্যামেরাবন্দি করেছেন এক ট্যুরিস্ট গাইড। যদিও এর আগে বন দফতরের ট্র্যাপ ক্যামেরায় মাঝেমধ্যে ব্ল্যাক প্যান্থারের অস্পষ্ট ছবি ধরা পড়েছিল। তবে বক্সায় দিনের আলোয় এই প্রথম কেউ একজোড়া ব্ল্যাক প্যান্থারের ছবি তুললেন।

গত মঙ্গলবার ফরেস্ট গাইড নেখু ওই ছবি তোলেন। যদিও এতদিন নিশ্চিত হতে পারছিলেন না এই ছবি কালো চিতারই কিনা।
এই বিষয়ে বনদফতর নিশ্চিত করার পর কালো চিতার সেই ছবি বৃহস্পতিবার থেকে ভাইরাল হয়। যা এখন রীতিমত সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের ক্ষেত্র অধিকর্তা শুভঙ্কর সেনগুপ্ত বলেন, ব্ল্যাক প্যান্থারের সাক্ষাৎ পাওয়া সহজ ব্যাপার নয়। বক্সার জঙ্গলে বসা আমাদের ট্র্যাপ ক্যামেরাতেও ব্ল্যাক প্যান্থারের ছবি আসছে। বক্সার জীব বৈচিত্র্য স্বাভাবিক আছে ব্ল্যাক প্যান্থারের উপস্থিতিই তার প্রমাণ।

স্টেট ওয়াইল্ড লাইফ বোর্ডের সদস্য অনিমেষ বসু বলেন, মহানন্দা, ন্যাওড়াভেলি, গোরুমারা, জলদাপাড়া ও বক্সা উত্তরের সংরক্ষিত পাঁচটি অভয়ারণ্যে কালো চিতার অস্তিত্ব আছে। আসলে এরা বিড়াল প্রজাতির। বনদফতর জানিয়েছে, ব্ল্যাক প্যান্থার মূলত পাহাড়ের ঢালে স্যাঁতসেঁতে জায়গাতে থাকতে ভালোবাসে। জঙ্গলে ঝড়াপাতার সময় এরা পাহাড়ের ঢাল বেয়ে নীচে নেমে আসে। তবে এদের খুবই কম দেখা যায়।