স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এনআরএস কুকুর কান্ডে দু’জন নার্সের জামিন হয়েছিল আগেই৷ তবু তাদেরকে থাকতে হয়েছিল মহিলা জেলে৷ অবশেষে শুক্রবার তারা ছাড়া পেল৷

সম্প্রতি এনআরএস হাসপাতালের ভিতর থেকে উদ্ধার হয় ১৬টি কুকুর শাবকের মৃত দেহ৷ ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেয়ে পুলিশ প্রিভেনশন অফ ক্রুয়েলটি টু অ্যানিমেল অ্যাক্টে মামলা রুজু করে৷ এবং মামলায় পশু হত্যা ও প্রমাণ লোপাটের জন্য ৪২৯ ও ২০১ ধারা যুক্ত হয়৷ এরপরই এন্টালি থানার পুলিশ দুই নার্সিং পড়ুয়া মৌটুসি মন্ডল ও সোমা বর্মনকে গ্রেফতার করে৷ পরে ধৃতদের শিয়ালদহ কোর্টে তোলা হয়৷ বিচারক দু’জনকে সর্তসাপেক্ষে জামিন দেন৷ কারণ জামিনযোগ্য ধারায় মামলা রুজু হয়েছিল৷

কোর্ট থেকে তাদের জামিন হলেও ওই দুই নার্সকে যেতে হয়েছিল জেলে৷ তাদেরকে পাঠানো হয়েছিল আলিপুর মহিলা সংশোধনাগারে৷ নিয়ম অনুযায়ী সর্তসাপেক্ষে জামিন হলে আদালতে বন্ড জমা দিতে হয়৷ অভিযুক্তদের দু’টি আলাদা বন্ডে মোট ৪০০০ টাকা আদালতে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল আদালত৷ সেই টাকা সময় মত জমা না দিতে পারায় দুই নার্সকে জেলে পাঠানো হয়৷

সূত্রের খবর, কুকুর কান্ডে দু’জন নার্সকে যেহেতু এন্টালি থানার পুলিশ গ্রেফতার করেছে৷ সেহেতু ওই থানা এলাকার কাউকে জামিনদার হতে হবে৷ ঘটনাচক্রে এনআরএস হাসপাতালটি এন্টালি থানা এলাকার মধ্যে পড়ে৷ শুক্রবার স্থানীয় থানার জামিনদার আদালতে বন্ড জমা দিলে ধৃত নার্সরা জেল থেকে ছাড়া পান৷ তবে সপ্তাহে একদিন তাদেরকে থানায় হাজিরা দিতে হবে৷ এছাড়া মামলা নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তারা পুলিশের অনুমতি ছাড়া এন্টালি থানার বাইরে যেতে পারবে না৷