বাঁকুড়া: গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অবৈধ বালি পাচার রুখতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন সরকারী আধিকারিরা। বৃহস্পতিবার রাতে বাঁকুড়ার মেজিয়া থানা এলাকার ভাড়রা গ্রামের এই ঘটনায় পুলিশ দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে।

খবরে প্রকাশ, বৃহস্পতিবার রাতে মেজিয়া ব্লক প্রশাসনের কাছে খবর আসে প্রশাসনিক নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে দামোদর নদীর রামচন্দ্রপুর-তেলেণ্ডা ঘাট থেকে ট্রাক্টরে চাপিয়ে বালি পাচার করা হচ্ছে। খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সঙ্গেই বিডিও অনিরুদ্ধ ব্যানার্জ্জী ও বিএলআরও অমিত দাস ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা হন। পথে ভাড়রা গ্রামের কাছে ঐ বালি বোঝাই ট্রাক্টর গুলিকে তারা আটক করেন।

সেই সময় অবৈধ বালি পাচারকারীদের একাংশ বিডিও এবং বিএলআরওকে হেনস্থা করে বলে অভিযোগ। সেই সুযোগে বালি ভর্তি ট্রাক্টর গুলি পালিয়ে যায়।

এই ঘটনার পর নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ নাগরডাঙ্গা গ্রামের আশিস মহন্ত ও ডাং মেজিয়া গ্রামের কর্ণ মণ্ডলকে গ্রেফতার করে। শুক্রবার তাদের বাঁকুড়া জেলা আদালতে তোলা হয়।

স্থানীয় বাসিন্দা প্রকাশ মণ্ডল বলেন, ঐ ঘটনার সময় বাড়িতে ছিলামনা। কি ঘটনা ঘটেছে জানিনা। তবে তাদের গ্রামের রাস্তা দিয়ে অবৈধভাবে বালি পাচার হয় বলে তিনি স্বীকার করেন।

অভিযুক্তদের মধ্যে একজন নিজেকে নির্দোষ দাবী করে বলেন, ঐ ঘটনার শেষ মুহূর্তে আমি পৌঁছেছি। সঠিক কি হয়েছিল তিনি জানেননা বলে দাবী করেন। পুলিশের পক্ষ থেকে ঘটনার তদন্তের পাশাপাশি আরো কেউ যুক্ত আছে কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।