নয়াদিল্লি: নাগরিকত্ব আইনের সমর্থন জোগাড় করা নিয়ে ইতিমধ্যে বিজেপি প্রকাশ করেছে টোল ফ্রি নম্বর। বিজেপির তরফ থেকে জানানো হয়েছে ওই নম্বরে মিসড কল দিলে জানানো যাবে নাগরিকত্ব আইনের সমর্থন। তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে এই নম্বরকে নিয়ে এই মুহূর্তে শুরু হয়েছে অদ্ভুত পোস্ট।

এমনিতেই এই আইনের বিরুদ্ধে পা মিলিয়েছে দেশের ছাত্ররা। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারাও এই আইনের বিরুদ্ধে পা মিলিয়েছে। কিন্তু তারপরেও বিজেপির তরফ থেকে জানানো হয়েছে লাগু হবে এই আইন।

তবে এই আইনের সমর্থনে গলা তুলেছেন বিজেপির শীর্ষস্থানীয় নেতারা। এই আইনের সমর্থনে কলকাতা এসে সভা করেছিলেন জে পি নাড্ডাও৷ বিরোধী নেতারাও এই আইনের বিরুদ্ধে গলা তুলেছিলেন। এই আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন দেশের বুদ্ধিজীবী সম্প্রদায়ের মানুষজনেও।

নেটফ্লিক্সের সাবস্ক্রিপশন থেকে শুরু করে সুন্দরী মেয়েদের সঙ্গে একান্তে কথা বলার বিজ্ঞাপন সব জায়গাতেই দেখা যাচ্ছে এই নম্বর। মনে করা হচ্ছে এভাবেই ঘুরিয়ে সমর্থন যোগাড়ের রাস্তাতে নেমেছে গেরুয়া শিবির। যদিও বিজেপি নেতাদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে সিএএকে সমর্থন জানানোর জন্য যাতে এই নম্বরে মিসড কল করা হয়।

কিন্তু টুইটারে দেখা গিয়েছে অন্য রকম পোস্ট অনেক মহিলা লিখেছেন তিনি একা রয়েছেন আর তার সঙ্গে কথা বলতে চাইলে কেউ যেন ওই নম্বরে ফোন করেন। এছাড়াও অনেকে জানিয়েছেন তার ফোন হারিয়ে গিয়েছে কেউ যাতে তার নম্বরে ফোন করেন তাহলে খুব সুবিধা হয়। অথচ নম্বর হিসেবে দেওয়া রয়েছে বিজেপির তরফ থেকে নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে প্রকাশ করা টোল ফ্রি নম্বর।

অনেকে লিখেছেন আমার সঙ্গে বন্ধুত্ব করতে চাইলে ফোন করুন আমার নম্বরে। অথচ দেওয়া রয়েছে বিজেপির তরফ থেকে প্রকাশ করা টোল ফ্রি নম্বর। এই নিয়ে ইতিমধ্যে নেটিজেনরা শুরু করেছেন সমালোচনা। অনেকেই ক্ষুব্ধ হয়ে জানাচ্ছেন এটা বিজেপির আইটি সেলের নোংরা পদক্ষেপ সমর্থন জোগাড় করার।