নয়াদিল্লি: জন্মের ব্যবধান মাত্র কয়েক মিনিটের। সেটাই যা পার্থক্য। বাকি আর কোনও কিছুতেই জীবনে ফারাক দেখা যায়নি। সেই অভিন্নতার ধারা বজায় রেখে ইন্ডিআন মিলিটারি অ্যাকাডেমি থেকে স্নাতক হয়ে নজির গড়লেন দুই যজম ভাই।

আলোচিত দুই ভাইয়ের নাম হচ্ছে অনুভব পাঠক এবং পারিনাভ পাঠক। চেহারার মধ্যে সাদৃশ্য তো ছিলই। আগ্রহের বিষয়েও ছিল ব্যপক মিল। সেই ধারা বজায় রয়েছে পেশার জগতেও। যা থেকে হয়ে গিয়েছে এক রেকর্ড। এমটা হতে পারে কেউই ভাবতে পারেনি।

আরও পড়ুন- আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে ‘আপত্তিজনক’ পোস্ট শেয়ার, গ্রেফতার সাংবাদিক

পঞ্জাবের বাসিন্দা এই পাঠক ভাতৃদ্বয় অমৃতসরের একই স্কুলে লেখাপড়া করেছেন। পরে লুধিয়ানা কলেজ থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করেন। এরপরে তাঁদের দু’জনেরই দেশের হয়ে কাজ করার আগ্রহ জাগে। সেই কারণেই তাঁরা ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমি ভরতি হয়েছিলেন। শনিবার সেখানের পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে।

আর সেই ফলাফলের রয়েছে চমক। দুই ভাই এক সঙ্গে পাশ করেছেন। এর আগে ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমিতে এই রেকর্ড দেখা যায়নি। তবে আগেও যমজ ভাইদের এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে পাশ করার রেকর্ড রয়েছে। কিন্তু সেটা আলাদা আলাদা বছরের। একই বছরের মধ্যে পাশ করার রেকর্ড ছিল না। যার প্রথম কৃতিত্ব দখল করে নিয়েছে এই পাঠক ভাইয়েরা।

আরও প্রুন- দেড়শো ফুট গভীর কুয়োয় আটকে দু’বছরের শিশু, চলছে উদ্ধারকার্য

এই যমজ সন্তানদের জনক অশোক পাঠক ছেলেদের কৃতিত্বে গর্বিত। তিনি বলেছেন, “খুবই ভালো লাগছে দু’জনে একসঙ্গে পাশ করল। জন্মের সময় থেকেই ওদের খুব মিল। স্কুলের পরীক্ষার ক্ষেত্রেও দু’জনে প্রায়ই এক নম্বর পেতো।” সেই ধারা বড় হয়েও বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে এই ভাইয়েরা। তবে ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমি থেকে এক সঙ্গে এই দুই ভাই পাশ করলেও তাঁদের পোস্টিং একই জায়গায় হচ্ছে না। ভিন্ন রেজিমেন্টে তাঁদের পাঠানো হচ্ছে।

এই ভিন্ন রেজিমেন্টে পোস্টিং পাওয়ার বিষয়ে অখুশি নয় পাঠক ব্রাদার্স। কারণ ট্রেনিং চলাকালীন একই রকম দেখতে হওয়ার কারণে অনেক সময়েই অনেক সমস্যা হয়েছিল। অনেকেই গুলিয়ে ফেলেছিলেন অনুভব এবং পারিনাভকে। সেই সময় বিষয়টি মজার মনে হলেও কাজের ক্ষেত্রে তেমন মজার পরিবেশ সৃষ্টি হোক তা আর চাইছেন না তাঁরা।

আরও প্রুন- টাইমস স্কোয়ারে হামলার ছক কষে গ্রেফতার বাংলাদেশি আশিকুল

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।