চেন্নাই: মধুচক্র চালানোর অভিযোগে গ্রেফতার করা হল এক জনপ্রিয় টেলিভিশন অভিনেত্রীকে। একই সঙ্গে এই ঘটনায় জড়িত আরও একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ধৃত অভিনেত্রী হলেন সঙ্গীতা বালান। তামিলনাড়ুর টেলিভিশনের বেশ পরিচিত মুখ। তার কুকর্মে জড়িত থাকার অভিযোগে সতীশ নামের এক ব্যক্তিকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতেরা তামিলনাড়ুর একটি রিসর্টে মধুচক্র চালাচ্ছিল। সেখানে নানা ধরনের প্রলোভন দেখিয়ে অল্পবয়সী মেয়েদের নিয়ে আসা হত। এবং এরপরে একপ্রকার জোর করেই অপকর্মে লিপ্ত করা হতো।

খবর পেতেই এই বিষয় নিয়ে নড়ে বসে চেন্নাই পুলিশ। বিশেষ অভিযান চালিয়ে সেই রিসর্ট থেকে গ্রেফতার করা হ্য অভিনেত্রী সঙ্গীতা বালান এবং তার সঙ্গী সতীশকে।

জানা গিয়েছে, মোটা মাইনের চাকরি এবং সিনেমা ও টেলিভিশন অনুষ্ঠানে সুযোগ দেওয়ার নাম করে ফাদে ফেলা হতো মেয়েদের। রঙীন স্বপ্ন দেখা অল্প বয়সী মেয়েরাও রঙীন দুনিয়ার আকর্ষণে খুব সহজেই সঙ্গীতা-সতীশের ফাঁদে পা দিত। এভাবেই চলছিল যৌনতার অবৈধ কারবার। পুলিশের তৎপরতায় যার যবনিকা পড়ল।

সঙ্গীতা বালান তামিল তেলিভশন জগতে বেশ জনপ্রিয়। বানী রানি, চেল্লামায় আভাল এবং ভাল্লি-র মতো জনপ্রিয় টেলিভিশন সিরিয়ালে অভিন্য করেছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।