কলকাতা: ভোটের ময়দানে দীর্ঘদিনের বন্ধু যখন শত্রু! কোনও সমঝোতা নয়, একেবারে সম্মুখ সমর। মোহনবাগান নির্বাচনে লড়াই টুটু-অঞ্জনের৷ সমঝোতার জল্পনা উড়িয়ে দিয়ে মঙ্গলবার ক্লাব তাবুতে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন প্রাক্তন বাগান প্রেসিডেন্ট টুটু বোস। প্রায় ২৮ বছর পর ফের গঙ্গাপাড়ের ক্লাবের নির্বাচনী ময়দানে স্বপনসাধন বসু৷ শুধু তাই নয়, ‘বন্ধু’ অঞ্জনকে চ্যালেঞ্জ জানাতে সচিব পদে লড়ছেন টুটু৷

দীর্ঘদিন মোহনবাগানের প্রেসিডেন্টের পদ সামলেছেন টুটু বসু৷ আর তাঁর সভাপতিত্ত্বে বছরের পর বছর সচিব পদ সামলেছেন অঞ্জন মিত্র৷ কিন্তু বাগানে এবার অন্য দৃশ্য৷ প্রায় তিন দশক পর এক সময়ের অভিন্ন বন্ধু অঞ্জনকে চ্যালেঞ্জ জানাতে এবার তাঁর বিরুদ্ধেই প্রার্থী হচ্ছেন টুটু। তিনি শেষবার ১৯৯০ বাগান নির্বাচনে লড়েছিলেন। এবারের নির্বাচনে চিত্রনাট্যে অনেক বদল হয়েছে৷ অনেকটা থ্রিলারের মতো। বন্ধু-বিচ্ছেদের মধ্যেও রয়েছে আবেগ৷ ক্লাবকে ভালোবেসে সমর্থকদের কথা ভেবে ফের ভোটের ময়দানে ফিরলেন টুটু৷

মঙ্গলবার রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে পাশে নিয়ে টুটু বসু জানিয়ে দেন, তিনি সচিব পদে প্রার্থী হচ্ছেন। তাঁর প্যানেল-সহ মনোনয়নও জমা করেন টুটু৷ সহ-সচিব হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন সৃঞ্জয় বোস। কোষাধ্যক্ষ পদে প্রার্থী প্রাক্তন ফুটবলার সত্যজিৎ চট্টোপাধ্যায়। আর অর্থ-সচিব পদে লড়ছেন দেবাশিস দত্ত৷ ভোল পালটে সদ্য টুটুশিবিরে যোগ দেওয়া স্বপ্নন (বাবুন) বন্দ্যোপাধ্যায় লড়বেন ফুটবল সচিব পদে।

২৩ বছর সভাপতির পদ সামলানো টুটু এদিন মনোনয়নপত্র জমা দিতে নিজেই ক্লাব তাঁবুতে এসেছিলেন। আর বর্তমান সচিব অঞ্জন মিত্রকে অবশ্য এদিন ক্লাব তাঁবুতে দেখা যায়নি৷ শেষ পর্যন্ত অঞ্জন মিত্র প্রতিনিধি পাঠিয়ে তাঁর মনোনয়নপত্র জমা দেন। সেই সঙ্গে ৬২ বছরের বন্ধুত্ব ভুলে বাগান নির্বাচনে মুখোমুখি লড়াইয়ে দুই বন্ধু।

বসু গোষ্ঠীর প্যানেল: স্বপন সাধন বসু (সচিব), সৃঞ্জয় বসু (সহ-সচিব), সত্যজিৎ চ্যাটার্জি (কোষাধ্যক্ষ), দেবাশিস দত্ত (অর্থ সচিব), সম্রাট ভৌমিক (ক্রিকেট সচিব), বাপ্পা ঘোষ (টেনিস সচিব), উত্তম সাহা (গ্রাউন্ড সচিব), মহেশ টেকরিওয়াল (হকি সচিব), বাবুন বন্দ্যোপাধ্যায় (ফুটবল সচিব) দেবাশিস মিত্র (অ্যাথলেটিক্স সচিব) ও বিদেশ বসু (যুব ফুটবল উন্নয়ন সচিব)।

মিত্র গোষ্ঠী সরকারিভাবে প্যালেন জমা না-দিলেও শোনা যাচ্ছে অঞ্জন মিত্রের (সচিব) সঙ্গে প্যানেলে থাকতে পারেন মদন দত্ত (কোষাধ্যক্ষ), অর্ঘ্য ঘোষ (ক্রিকেট সচিব), সোমনাথ ঘোষ (টেনিস সচিব), স্বাধীন মল্লিক (গ্রাউন্ড সচিব), শৈলেন ঘোষ (হকি সচিব) এবং সোহিনী মিত্র (যুব ফুটবল উন্নয়ন সচিব)। নির্বাচনে ক্লাইমেক্স হল তৃতীয় ফ্রন্টের তরফে সহ-সচিব পদে কুনাল ঘোষ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া৷