সিরিয়ার দিকে যাওয়ার চেষ্টা করছিল রাশিয়ার বিমান। মাঝ আকাশে সেই বিমানকে থামিয়ে দিল তুরস্ক। চারটি বিমানের মধ্যে মিলিটারি এয়ারক্রাফট ছাড়াও ছিল দুটি বম্বার। রাশিয়ার এক সংবাদমাধ্যম সূত্রেই এই খবর জানা গিয়েছে।

নিজেদের আকাশসীমায় চার রুশ যুদ্ধবিমানকে বাধা দেয় তুরস্ক। গত বৃহস্পতিবার তুর্কি আকাশ সীমায় এই ঘটনা ঘটেছে বলে খবর দিয়েছে রুশ সংবাদমাধ্যম নেজাভিসিমায়া গেজেটা।

শনিবারম সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট মনিটরে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, রুশ যুদ্ধবিমানগুলি রাশিয়ার হেইমিন এয়ার বেস থেকে সিরিয়ার উদ্দেশে যাচ্ছিল। চারটি বিমানের মধ্যে দু’টি বিশেষ বোমারু বিমান ছিল। কিন্তু বিমান চারটি তুর্কি সীমানায় প্রবেশ করলেই তাদের বাধা দিতে এগিয়ে আসে তুর্কি বিমান বাহিনী।

সিরিয়ার ইদলিব নিয়ে সম্প্রতি মস্কোতে রুশ-তুর্কি বৈঠকে কোনো ধরনের সমাধান মেলেনি। এরপর এটিই দুই দেশের প্রথম মুখোমুখি অবস্থান। এতে দুই দেশের মধ্যে দূরত্ব বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

‌মার্কিন সংবাদ মাধ্যম ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, রুশ সমর্থিত সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর বিমান হামলায় তুর্কি সেনা নিহত হওয়ার ঘটনার জেরে আমেরিকার কাছে প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা ধার চেয়েছে তুরস্ক। সিরিয়া ইস্যুতে ক্রমেই রাশিয়ার সাথে এরদোগান সরকারের দূরত্ব বাড়ছে। অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের সাথে কৌশলগত মিত্রতার দিকে ঝুঁকছে তুরস্ক।

ইদলিবের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার পর বুধবার জরুরি বৈঠকে বসে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ। বৈঠকে ওই অঞ্চলের সাধারণ নাগরিকদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে জাতিসংঘের মানবিক সহযোগিতা বিষয়ক কমিশনার।

পৃথিবীর পরিস্থিতি জটিল আকার ধারণ করলেও সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ শুরু হওয়ার দীর্ঘ প্রায় 8 বছর পর প্রথমবার খুলে দেওয়া হয়েছে আলেপ্পো বিমানবন্দর।