আমেরিকায় সাতটি মুসলিম প্রধান দেশের নাগরিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারির পরেই অনেকেই বহু প্রতিকূলতার মুখে পড়তে চলেছে। ইরানের চিত্রপরিচালক আসঘার ফারহাদিকেও এই সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। ফারহাদি ইরানের নাগরিক,আর যে দেশ গুলির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে সেগুলির মধ্যে রয়েছে ইরানও। এবারের অস্কারে বিদেশি ছবির বিভাগে মনোনীত হয়েছে ফারহাদির ছবি ‘দ্য সেলসম্যান’। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা জারির ফলে অস্কার অনুষ্ঠানে তিনি উপস্থিত থাকতে পারবেন না বলেই মনে করা হচ্ছে।

এখনও পর্যন্ত ফারহাদি এই বিষয় কোনও মন্তব্য করেননি। কিন্তু জাতীয় ইরানিয়ান আমেরিকান কাউন্সিলের প্রধান এই বিষয়টিকে নজরে এনেছেন। আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি অস্কারের অনুষ্ঠান হবে। ইরানিয়ান আমেরিকান কাউন্সিলের প্রধান জানান, “উনি যেতে পারবেন না। উনি একজন ইরানিয়ান পাসপোর্ট হোল্ডার, তাই উনি যেতে পারবে না। ট্রাম্প বিশেষ ভাবে প্রবেশ করতে না দিলে আর কোনও উপায় নেই”।

অ্যাকাডেমি অফ মোশন পিকচার্সের এক মুখপাত্র বলেছেন, সিনেমা জগতের সফল ব্যক্তিত্বদের সাফল্যকে সম্মান জানান্তেই অস্কার আর এটি বিশ্বের দেশ গুলির মধ্যে সীমানা অতিক্রম করে জাতি ধর্ম সংস্কৃতি নির্বিশেষে বিশ্বের সমস্ত মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করে। কিন্তু ট্রাম্পের এই নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য অস্কার প্রাপ্ত পরিচালক ফারহাদি ও ‘দ্য সেলসম্যান’ এর টিম এবারের অস্কার অনুষ্ঠানে হয়তো উপস্থিত থাকতে পারবেন না বলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন। আসঘার ফারহাদি এর আগে ‘এ সেপারেশন’ ছবির জন্য অস্কার পেয়েছিলেন।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা