ওয়াশিংটন: ভারত ও পাকিস্তানের পরিস্থিতি নিয়ে ফের বিবৃতি দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পুলওয়ামার হামলার পর আগেও প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন তিনি। এবার ভারত-পাকিস্তানের পরিস্থিতি ‘অত্যন্ত ভয়াবহ।’

হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘বর্তমানে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে খুবই খারাপ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। খুবই ভয়াবহ পরিস্থিতি। আমরা এই পরিস্থিতির সমাধান চাই। বহু মানুষের মৃত্যু হয়েছে।’

আরও পড়ুন: জরুরি ভিত্তিতে ১০০ কোম্পানি প্যারামিলিটারি এয়ারলিফট করে নিয়ে যাওয়া হল কাশ্মীরে

আগেই পুলওয়ামায় জঙ্গি হানা নিয়ে দুঃখপ্রকাশ করে পেশ করা নিজেদের বিবৃতিতে চিনের আপত্তি সত্ত্বেও জইশের নাম উল্লেখ করেছে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সমালোচনায় সরব হয়েছে গোটা বিশ্ব। এমন সময়ই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মুখ খুললেন।

তিনি বলেন, “ভারত এখন অত্যন্ত শক্তিশালী কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করার চেষ্টা করছে। এই হানায় ভারতের প্রায় ৫০ জন মারা গিয়েছে। আমি এই অনুভূতিটা বুঝতে পারি”। তিনি জানান, তাঁর প্রশাসন এই দুই দেশের সঙ্গেই কথা চালাচ্ছে। “আমরা কথা বলছি। বহু মানুষ কথা বলছেন। সকলেই চান এই ব্যাপারটির একটি ইতিবাচক নিষ্পত্তি হোক। দু’পক্ষেরই অত্যন্ত ভারসাম্য রেখে চলা দরকার। যে ঘটনা ঘটেছে, তারপর ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে নতুন করে বহু সমস্যার জন্ম দিয়েছে”, বলেন ট্রাম্প।

আরও পড়ুন: আমরা ভারতীয়, জাতি ধর্মের ভেদ মানি না-গর্জে উঠল সিআরপিএফ

প্রসঙ্গত, স্বাধীনতার পর কাশ্মীর উপত্যকায় ভারতীয় সেনার ওপর সবথেকে বড় হামলা হয় ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামাতে। তারপর পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ক্ষোভে, বিরক্তিতে ফেটে পড়ে গোটা দেশ। কূটনৈতিকভাবে পাকিস্তানকে একঘরে করে দেওয়ার প্রক্রিয়াও ভারত শুরু করে আন্তর্জাতিক মহলে। শুক্রবার পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে ভারতকে সতর্ক করে দিয়ে বলা হয়, ভারত এই মুহূর্তে যা করছে তার জবাব দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে পাক সেনার।

পাকিস্তানের থেকে ‘মোস্ট ফেভারড নেশন’-এর তকমা ছিনিয়ে নেয় ভারত। শুধু তাই নয়, পাকিস্তানের পণ্যের ওপর ২০০ শতাংশ বেশি শুল্ক চাপানোর কথাও ঘোষণা করেছে নরেন্দ্র মোদীর সরকার।