ওয়াশিংটন: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বীকে ঘায়েল করতে ফের বর্ণবাদী মন্তব্য করলেন। তিনি ডেমোক্র্যাটিক পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ভারতীয় বংশোদ্ভূত কৃষ্ণাঙ্গ নারী কমলা হ্যারিসের মার্কিন নাগরিকত্ব তুলে প্রশ্ন তুলেছেন।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ মাধ্যমের সামনে ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কমলা হ্যারিসের অংশগ্রহণের আদৌ যোগ্যতা আছে কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। ট্রাম্প বলেন, “আমি আজ শুনলাম তার নির্বাচনে অংশগ্রহণের যোগ্যতাই নেই। আমি জানি না এটি সত্য কিনা। আমার মনে হয় ডেমোক্র্যাটরাই বিষয়টির সত্যতা যাচাই করতে পারবে।”

প্রসঙ্গত, এর আগে প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার মার্কিন নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলতে দেখা গিয়েছিল বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। তাছাড়া বারবার নানা রকম বিতর্কিত মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছে ট্রাম্পকে।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই কমলা হ্যারিস ১৯৬৪ সালের ২০ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ওকল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন। তবে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আইনের একজন অধ্যাপক মার্কিন নির্বাচনে কমলা হ্যারিসের অংশগ্রহণের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তার বক্তব্য , কমলার জন্মের সময় তার ভারতীয় মা এবং জ্যামাইকান বাবা স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছিলেন; কাজেই তিনি জন্মসূত্রে আমেরিকার নাগরিক নন।

ওই আইনের অধ্যাপকের এহেন মন্তব্য ট্রাম্পের বেশ মনে ধরেছে তা বলাই বাহুল্য। ফলে বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বারবার এই ঘটনাটির প্রসঙ্গ তুলতে দেখা যাচ্ছে। মার্কিন সংবিধান অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট অথবা ভাইস প্রেসিডেন্ট হতে হলে সেই ব্যক্তিকে জন্মসূত্রে মার্কিন নাগরিক হতেই হবে। আগামী ৩ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও