ওয়াশিংটন : উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে কথা বলার বিষয়ে আগ্রহী আমেরিকা৷ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আশাবাদী উত্তর কোরিয়ার সাথে বৈঠক ফলপ্রসূ হবে৷ ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এই বৈঠক চাইছে বলে জানিয়েছেন তিনি৷

এই আলোচনা দুদেশের সম্পর্ককে অন্য মাত্রা দেবে বলে আশাবাদী তিনি৷ এতে আন্তর্জাতিক সম্পর্কের দৃষ্টিকোণও বদলে যাবে বলে জানিয়েছেন ট্রাম্প৷ উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের তরফ থেকেও একই ভাবে সাহায্য মিলবে বলে আশাপ্রকাশ করেছেন তিনি৷

পেনসিলভেনিয়ায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এমনই মত প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷ তিনি জানিয়েছেন আমেরিকা চায় উত্তর কোরিয়া তাদের এই বন্ধুত্বপূর্ণ অবস্থানেই থাকুক৷ এতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে তাদের সম্পর্কের উন্নতি হবে বলে আশা ট্রাম্পের৷ তাদের পরমাণু পরীক্ষা নিরীক্ষার ওপরেও উত্তর কোরিয়া লাগাম টানবে বলে মনে করছেন তিনি৷

২০১৭ সালে ২৮ নভেম্বরের পর থেকে উত্তর কোরিয়া কোনও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেনি৷ এটা আশাব্যঞ্জক৷ তারা তাদের কথা রাখবে বলে মনে করছেন ট্রাম্প৷ এর আগে, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জন উনের সাথে বৈঠক করতে রাজী হন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

উত্তর কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জানান, মে মাসের মধ্যে দুই নেতার বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকের সুনির্দিষ্ট তারিখ এবং স্থান এখনও নির্ধারিত হয়নি। বৈঠক অনুষ্ঠিত হবার আগে পর্যন্ত উত্তর কোরিয়া তাদের সব পারমানবিক এবং মিসাইল কার্যক্রম বন্ধ রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বলে সূত্রের খবর৷

গত কয়েক মাস ধরে উত্তর কোরিয়া এবং আমেরিকার মধ্যে হুমকি ও পাল্টা হুমকির মাঝে এ ধরণের বৈঠকের সম্ভাবনা বড় হয়ে ওঠার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞরা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।