ওয়াশিংটন: ৩রা নভেম্বরের রয়েছে মার্কিন নির্বাচন। গোটা বিশ্বের মানুষ এই নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে থাকে। যদিও সেই নির্বাচনের আগে রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমক্র্যাটিক প্রার্থী জো বাইডেন বৃহস্পতিবার রাতে চূড়ান্ত বিতর্কে মুখোমুখি হচ্ছেন।

গত সেপ্টেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত তাঁদের মধ্যকার ৯০ মিনিট ব্যাপী প্রথম নির্বাচনী বিতর্কে উভয় প্রার্থী, যাঁদের বয়স ৭০ ‘এর কোঠায়, বার বার পরস্পরকে থামিয়ে কথা বলার চেষ্টা করতে দেখা গিয়েছিল।

যার ফলে ঐ বিতর্কে এক ধরণের অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল। অনেক রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞই ওই বিতর্ককে প্রেসিডেন্টের নির্বাচনী বিতর্কগুলির মধ্যে সব চেয়ে খারাপ বিতর্ক বলে অভিহিত করেছেন।

এবার এই বিতর্কে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে।প্রেসিডেন্টের বিতর্ক বিষয়ক নিরপেক্ষ কমিশন প্রশ্নের উত্তরে একজন প্রার্থীর দু মিনিট ধরে বক্তব্য রাখার সময়ে অন্য জনের মাইক্রোফোন বন্ধ করা থাকবে। এনবিসি নিউজের ক্রিস্টেন ওয়াকারের সঞ্চালনায় ৬ টি বিষয়ে তাঁদের প্রশ্ন করা হবে।

দু মিনিটের সূচনা বক্তব্য রাখার সময়ে যদি ট্রাম্প কিংবা বাইডেন কেউ পরস্পরের কথার সময় হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা না করেন তা হলে অন্ততপক্ষে তুলনামূলক ভাবে যে অল্প সংখ্যক ভোটদাতা যারা এখনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি তাঁরা কাকে ভোট দেবেন, তাঁরা হয়ত স্পষ্ট বুঝতে পারবেন যে ২০ শে জানুয়ারি এদের মধ্যে একজন যখন শপথ নেবেন তখন তিনি কি ভাবে দেশ চালাবেন ।

সূচনা বক্তব্যের পর উভয় প্রার্থীর মাইক্রোফোন ফের খুলে দেওয়া হবে।

তবে প্রথম সেই বিতর্কের পর আজকে টেনেসি অঙ্গরাজ্যের ন্যাশভিলে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতর্ক মঞ্চে যে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে তাতে অনেক কিছুই বদলে গিয়েছে ।

গত সপ্তায় পরিকল্পিত বিতর্কটি অনুষ্ঠিত হতে পারেনি কারণ এর আগেই ট্রাম্প করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

তখন তিনি তিনদিন হাসপাতালে ছিলেন এবং পরে যখন কমিশন ভার্চুয়াল বিতর্কের সিদ্ধান্ত নেয় , ট্রাম্প তা প্রত্যাখ্যান করেন। ফলে তখন এই বিতর্ক অনুষ্ঠান বাতিল হয়ে গিয়েছিল।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।