ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি : গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে সারা দেশ জুড়ে চালু করা হয়েছে নতুন মোটর ভেকিলস আইন। যদিও এই নয়া আইনে পশ্চিমবঙ্গ বাদে ভারতের কম বেশি সব রাজ্যেই চালু হয়ে গিয়েছে নতুন ট্রাফিক আইন। আর এই নিয়মে আইন ভাঙলেই মোটা টাকার জরিমানা গুনতে হচ্ছে সাধারন মানুষকে। বিপুল অঙ্কের এই টাকা দিতে গিয়ে মাথায় হাত পড়ছে বাইক আরোহী থেকে চার চাকার চালক এবং ট্রাক চালকদের। নতুন এই আইন চালু হওয়ার পর থেকে আইন ভাঙা বা অন্য কোনও কারনে প্রত্যেক দিনই কম বেশি সাধারন মানুষকে যে মোটা অঙ্কের জরিমানা দিতে হচ্ছে সেই খবর রোজই উঠে আসছে সংবাদ মাধ্যমে।

১ সেপ্টেম্বর এর পরথেকে জরিমানার অঙ্ক নিয়ে খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে বিভিন্ন রাজ্যের বাইক আরোহী থেকে শুরু করে গাড়ির ড্রাইভার। এবার সেই তালিকায় নতুন করে নাম লেখালো রাজস্থানের এক ট্রাক মালিক। দিল্লি পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ভগবান রাম নামের ওই ব্যক্তির ট্রাকটি নির্দিষ্ট ওজনের থেকে বেশি মাল নিয়ে যাওয়ার সময় দিল্লি ট্রাফিক পুলিশের সামনে পড়ে, আর সেখানেই ওই ট্রাকটিকে জরিমানা করা হয় ১লাখ ৪১ হাজার ৭০০ টাকা।

মোটা টাকার এই চালান হাতে পেয়ে রীতিমত মাথায় হাত পড়েছে ওই ট্রাক মালিকের । কিন্তু কিছুই করার ছিল না অবশেষে সোমবার দিল্লির রোহিণী কোর্টে এসে পুরোটাকা জমা দিতে বাধ্য হন ভগবান রাম।

এই ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় পরিবহন সংগঠনের তরফে জানানো হয়েছে, তাঁরা কেউই আইন ভাঙার পক্ষে নয়। কিন্তু জরিমানার অঙ্ক এত বেশি কেন তার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে উঠেছে তাঁরা। গত জুলাই মাসে আইনসভায় মোটর ভেকিলস অ্যাক্ট পাস হওয়ার পর থেকে সারা দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে আইনভঙ্গকারিদের কাছ থেকে মোটা টাকা জরিমানা নেওয়া। আর এই মোটা টাকার অঙ্ক গুনতে রীতিমত মাথায় হাত পড়েছে কম বেশি সকলেরই।

গত ৪ সেপ্টেম্বর অত্যাধিক মালবহন সহ মাদকাসক্ত হয়ে গাড়ি চালানোর সময় গুরুগ্রাম ট্রাফিক পুলিশের মুখে পড়েন এক ট্রলি চালক। জানা গিয়েছে ওই চালকের থেকে ৫৯হাজার টাকার চালান কাটেন গুরুগ্রাম ট্রাফিক পুলিশ। এর আগের দিন অর্থাৎ ৩ সেপ্টেম্বর ওড়িশার সম্ব্বলপুরে ট্রাফিক জরিমানার সম্মুখীন হন নাগাল্যান্ডের রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত এক ট্রাক চালক। অশোক যাদব নামের ওই ট্রাক চালক জানিয়েছেন, প্রথমে তার কাছ থেকে ৮৬হাজার ৫০০ টাকার চালান কাটা হলেও পরে কিছু ডকুমেন্টস দেখানোয় শেষ পর্যন্ত ৭০হাজার টাকা জরিমানা দিতে হয় তাকে।

দিল্লি পুলিশের এক উচ্চ পদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, নয়া ট্রাফিক আইন লাগু হওয়ার পর থেকে রাজধানীতে ট্রাফিক আইন ভাঙার কারনে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৫ হাজার চালান কেটেছে দিল্লি পুলিশ। ওই পুলিশ অফিসারের দেওয়া একটি তথ্যে জানানো হয়েছে, এখনও পর্যন্ত মদ খেয়ে গাড়ি চালানোর অভিযোগে ২৫৪ জন চালককে জরিমানা করা হয়েছে,সিটবেল্ট না বাঁধার জন্য ট্রাফিক শাস্তি এবং জরিমানার মুখে পড়েছে ১হাজার২২৯ জন। এর মধ্যে সব থেকে বেশি জরিমানা করা হয়েছে হেলমেট ছাড়া বাইক চালানোর জন্য। হেলমেট ছাড়া বাইক চালানোয় জরিমানার কবলে পড়েছেন ৪হাজার ৯৭ জন চালক। বিপদজনক ভাবে গাড়ি চালানোয় জরিমানা করা হয়েছে ১হাজার ৫২৭ জন চালককে। শুধু তাই নয় ট্রাফিক সিগন্যাল ভাঙার অপরাধে ২হাজার ৬৯৮ জনকে জরিমানা করা হয়েছে।