নয়াদিল্লি: শুধু গালওয়ানে নয়, এই ককয়েকমাসে লাদাখের একাধিক জায়গায় ঘটেছে সংঘর্ষের ঘটনা। চিনের সেনাবাহিনীর সঙ্গে মোকাবিলা করতে হয়েছে ভারতীয় জওয়ানদের। এবার প্রকাশ্যে এল সেরকমই একটি তথ্য।

মে ও জুন মাসে লাদাখের লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের কাছে একাধিকবার সংঘর্ষে জড়িয়েছে ভারত ও চিন। আর চিনকে যোগ্য জবাব দিতে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করেছে আইটিবিপি জওয়ানেরা।

এরকমই একটি সংঘর্ষের ঘটনা চলে প্রায় ২০ ঘণ্টা ধরে। ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে সামনে এল সেই তথ্য।

সেই সংঘর্ষে যে ২১ জন জওয়ান তাঁদের বীরত্বের পরিচয় দিয়েছিলেন, তাঁদের গ্যালান্ট্রি অ্যাওয়ার্ডের জন্য রেকমেন্ড করলেন আইটিবিপি ডিরেক্টর জেনারেল এসএস দেশওয়াল।

শুক্রবার আইটিবিপি-র তরফে একটি বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, ২১ জনকে গ্যালান্ট্রি মেডালের জন্য রেকমেন্ড করেছেন ডিজি দেশওয়াল। মে-জুন মাসে চিনা সৈন্যের মুখোমুখি হয়ে বীরত্বের পরিচয় দেওয়ার জন্যই এই সম্মান।

জানা গিয়েছে, চিনের সেনাবাহিনী ভারতীয় জওয়ানদের লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়তে থাকে। ১৭ থেকে ২০ ঘণ্টা ধরে চলে সেই সংঘর্ষ। আইটিবিপি জওয়ানেরা শিল্ড ব্যবহার করে শুধু নিজেদের রক্ষাই করেনি, চিনকে কড়া জবাবও দিয়েছে। পাশাপাশি আহত জওয়ানদের ফিরিয়ে নিয়ে এসেছে ক্যাম্পে।

চিনের দিকে থেকে যারা পাথর ছুঁড়েছে, তাদের উপযুক্ত জবাব দিয়েছে ভারত। উঁচু পার্বত্য এলাকায় লড়াই করার বিশেষ ট্রেনিং ও অভিজ্ঞতা থাকায়, চিন সেনাকে সহজেই জবাব দেওয়া সম্ভব হয়েছে।

গত কয়েক মাস ধরেই লাদাখে চলছে ভারত-চিন সংঘাত। ১৫ জুন সেই সংঘাতে শহিদ হব ২১ জন ভারতীয় জওয়ান। ভারত-চিন সম্পর্কে তলানিতে এসে ঠেকতে শুরু করে এরপরই। একের পর এক চিনের অ্যাপ বন্ধ করে দিয়ে ভাতে মারার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্র। চিন থেকে একাধিক জিনিসের আমদানিও নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। চিনা দ্রব্য, চিনা সংস্থা বয়কট করার জন্য সরব হয় গোটা দেশ।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা