আগরতলা: বেসরকারি সংবাদ মাধ্যমের মুখ অর্ণব গোস্বামীকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতারের প্রতিবাদে সরব বিজেপি। বলা হয়েছে, এটি গণতন্ত্রের উপর আঘাত মহারাষ্ট্র সরকারের। এবার বিজেপি-আইপিএফটি শাসিত ত্রিপুরায় ফের আক্রান্ত সংবাদপত্র।

শনিবার সকালে উদয়পুরে রাজারবাগ মোটর স্ট্যান্ডে হকারের কাছে থাকা একটি স্থানীয় দৈনিক যতগুলি ছিল সব ছিঁড়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটল। অভিযোগের আঙুল বিজেপির বিরুদ্ধে। তবে দলটির নেতৃত্ব এই অভিযোগ অস্বীকার করছেন। যে হকারের কাছ থেকে কাগজ ছিনিয়ে ছিঁড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠছে, তিনিও কোনও দলের নাম করেননি। তবে জানিয়েছেন যারা এসেছিল তাদের সঙ্গে সিন্ডিকেট যোগ রয়েছে।

সম্প্রতি রাজ্যের একটি দৈনিক ‘প্রতিবাদী কলম’ কৃষিমন্ত্রী প্রাণজিৎ সিনহা রায়ের দফতরে ১৫০ কোটি টাকার কেলেঙ্কারির সংবাদ প্রকাশ করে। এর পরেই আক্রান্ত হল সংশ্লিষ্ট সংবাদ পত্রটি। উদয়পুরের রাস্তায় কাগজ ছিঁড়ে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই সেই ছবি হয়েছে ভাইরাল।

সম্প্রতি কোভিড মোকাবিলা বিস্তর অভিযোগ ঘিরে সংবাদ প্রকাশের কারণে প্রকাশ্যে সব সংবাদপত্র ও সংবাদ মাধ্যমকে হুঁশিয়ারি দেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। এই নিয়ে প্রবল বিতর্ক তৈরি হয়। সাংবাদিক সংগঠনের তরফে মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনা করা হয়। মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারির পর বিভিন্ন মাধ্যমের কয়েকজন সাংবাদিক আক্রান্ত হন। এতে বিতর্ক আরও বাড়ে।

রাজ্যে পরিবর্তনের পর বিজেপি আইপিএফটি জোট সরকার ক্ষমতায় আসতেই প্রধান বিরোধী দল সিপিআইএমের দৈনিক মুখপত্র বন্ধ করে দেওয়ার বিতর্ক দানা বেধেছিল। আইনি পথে সেই সংবাদপত্র পুনরায় প্রকাশ শুরু হয়েছে।

বিভিন্ন সময়ে রাজ্যের বিভিন্ন সংবাদপত্রের উপর ক্ষোভ দেখিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এবার মন্ত্রীর দফতরের কেলেঙ্কারির বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের পর সেই সংবাদপত্র নষ্ট করার ঘটনায় বিতর্ক আরও বাড়ল। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার আগেই অভিযোগ করেছেন রাজ্যে গণতন্ত্র লুঠ করার কাজ চলেছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I