স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এই প্রথমবার নয়, এর আগে ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডের মঞ্চেও তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইভিএম কারচুপি নিয়ে সরব হয়েছিলেন৷ সর্বস্তরে দাবি উঠেছিল পুরোনো ব্যালট ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনার৷ সোমবার নজরুল মঞ্চে কোর কমিটির বৈঠকেও সেই ইভিএম কারচুপি নিয়েই দলের নেতা-নেতৃদের সতর্ক করে দিলেন মমতা৷ যাতে কোনওভাবেই ইভিএম কারচুপি না হয় তাঁর জন্য দেওয়া হবে বিশেষ ট্রেনিং৷

দলের বিশেষজ্ঞ প্রবীণ নেতাদের নিয়ে তিনজনের একটি কমিটি গঠন করলেন মমতা৷ এরা জেলার কর্মীদের ভিভিপ্যাট ট্রেনিং দেবেন৷ মমতার কথায়, ‘‘যারা কাজটা জানে তারা এবার সকল কর্মীদের ভিভিপ্যাট ট্রেনিং দেবেন৷ ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে নজর রাখতে হবে৷ যাতে কেউ ইভিএম কারচুপি না করতে পারে৷’’

 

এই তিন জনের কমিটিতে রয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়, ব্যারাকপুরের সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদী ও দমদমের সাংসদ সৌগত রায়৷ নেত্রীর নির্দেশ, ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশ না হওয়া পর্যন্ত প্রত্যেকদিন দুপুর তিনটে থেকে পাঁচটা পর্যন্ত তৃণমূল ভবনে ট্রেনিং দেওয়া হবে কর্মীদের৷ কে কোন দিন এই ভিভিপ্যাট-এর ট্রেনিং নেবে তা সুব্রত বক্সির কাছে জানাতে হবে৷

মোদী-শাহ জুটি বাংলায় এসে বারবারই হুঙ্কার দিয়ে গিয়েছেন লোকসভায় ২২টি আসন তৃণমূল কংগ্রেসের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেবেন তারা৷ এদিন তৃণমূল সুপ্রিমো সেই হুঙ্কারেরই জবাব দিতে গিয়ে বলেন, ‘‘মোদী ও শাহ দুই জগাই মাধাই৷ কোন ভরসাতে ওরা বাংলায় এসে বলে ২২টি আসন জেতার? আমরা সর্বত্র নজর রাখছি৷ কোনও ফাঁক রাখব না৷ বাংলায় একটাও আসন বিজেপিকে পেতে দেব না৷’’ এদিন তিনি আরও বলেন, ‘‘৩৪ বছরের অত্যাচারিত বাম শাসনকে যখন শেষকরেছি, তখন ৫বছরে মোদীকে হারাবো৷’’

এদিকে ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডে মহাজোটের মঞ্চে সেদিন ব্যালট মেশিনে ভোট করার দাবি উঠলেও তা কার্যকর করা যায়নি৷ নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দিয়েছে, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ভোট হবে ইভিএম-এ৷ তাই আপাতত লোকসভা ভোটে ইভিএম কারচুপি রুখতে তৃণমূল কংগ্রেসের ভরসা ভিভিপ্যাট ট্রেনিং৷ দলের নেতা-কর্মীদের ওই ট্রেনিং দিয়ে সতর্ক করে দিতে পারলে খানিকটা নিশ্চিত হওয়া যাবে বলেই মত রাজনৈতিক মহলের৷