গায়ানা: লিগ পর্বে ধারাবাহিকতার অভাব চোখে পড়লেও প্লে-অফ উইকে ভুল করতে নারাজ ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। চলতি ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়র লিগের প্রথম নক-আউটে ছন্দবদ্ধ ক্রিকেট উপহার দেয় কাইরন পোলার্ডের নেতৃত্বাধীন নাইট রাইডার্স দল। এলিমিনেটরের লড়াইয়ে কার্লোস ব্রাথওয়েটের সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসকে ৬ উইকেটে পরাজিত করে নাইটরা। সেইসঙ্গে প্রবেশ করে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারের আঙিনায়।

গায়ানায় টস জিতে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় সেন্ট কিটসকে। সুনীল নারিনদের আঁটোসাটো বোলিংয়ের মুখে সেন্ট কিটস নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে বিনিময় ১২৫ রান তোলে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে নাইট রাইডার্স ৮ বল বাকি থাকতেই কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছে যায়। ১৮.৪ ওভারে ৪ উইকেটে বিনিময় ১২৮ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায় নাইটরা।

সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের হয়ে একা লড়াই চালান লরি ইভান্স। এক প্রান্ত আঁকড়ে অনবদ্য হাফ-সেঞ্চুরি করলেও বাকিরা যথাযথ সঙ্গত করতে পারেননি ইভান্সকে। শেষমেশ দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৫ রান করে আউট হন তিনি। ৪৭ বলের ইনিংসে ইভান্স ৮টি বাউন্ডারি মারেন।

বাকিদের মধ্যে দু’অঙ্কের রান করেছেন মহম্মদ হাফিজ (১১), উইকেটকিপার থমাস (১০), ও কেরন কটয় (অপরাজিত ১৪)। এছাড়া লুইস ৯, ব্রুকস ৫, ব্রাথওয়েট ৩, অ্যালেন ৬ রান করে আউট হন। ২ রান করে নট-আউট থাকেন এমরিত।

সুনীল নারিন ৪ ওভারে মাত্র ১০ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট দখল করেন। ক্রিস জর্ডন ৩০ রানের বিনিময়ে নেন ৩টি উইকেট। ২২ রানে ২টি উইকেট নিয়েছেন আলি খান। ক্যাপ্টেন পোলার্ড এই ম্যাচে বোলিং করেননি।

নাইট রাইডার্সের হয়ে অনবদ্য হাফ-সেঞ্চুরি করেন ওপেনার লেন্ডল সিমন্স। তিনি ৩টি চার ও সমসংখ্যক ছক্কার সাহায্যে ৪৭ বলে ৫১ রান করেন। বল হাতে সফল হলেও ওপেন করতে নেমে সুনীল নারিন মাত্র ৮ রান করে আউট হন। খাতা খুলতে পারেননি কলিন মুনরো। মাত্র ১ রান করে সাজঘরে ফেরেন ড্যারেন ব্র্যাভো। উইকেটকিপার রামদিনকে সঙ্গে নিয়ে দলকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেন পোলার্ড। রামদিন ২টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৩৮ বলে ৩২ রান করেন। পোল্যান্ড ১টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে মাত্র ৯ বলে ২৬ রান করে নট-আউট থেকে যান। ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন নারিন।