হাওড়া: রাজনৈতিক তরজায় ফের উত্তপ্ত হাওড়া৷ সোমবার বিজেপির বিক্ষোভের পর মঙ্গলবার তৃণমূলের বিক্ষোভে উত্তাল হল হাওড়া৷ শাসক দলের অভিযোগ, পুরসভা দখলের চেষ্টা করছে বিজেপি৷ পুরসভা ঘেরাও অভিযানের নামে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করছে।

তৃণমূল নেতৃত্বের আরও অভিযোগ, কখনও পুরসভায় ঢুকে প্ল্যাকার্ড ছিঁড়ে দিচ্ছে, ভাঙচুর করছে বাইক। এমনকি বিক্ষোভের নাম করে পুরসভায় ঢুকে পুরকর্মীদের মারধর করছে তারা। এই অভিযোগ তুলে এবার সরব হল হাওড়া পুরসভার তৃণমূল পরিচালিত কর্মচারী সংগঠন। মঙ্গলবার হাওড়া পুরসভা চত্বরে মিছিল করে তারা।

হাওড়া পুরসভার আইএনটিটিইউসি’র নেতা গুরুচরণ চট্টোপাধ্যায় জানান, হাওড়া পুরসভায় ঢুকে বিজেপির তাণ্ডবের প্রতিবাদেই এদিন তাঁরা কর্মচারীদের সঙ্গে নিয়ে মিছিল করেন। এছাড়াও এদিন এই মিছিলে নেতৃত্ব দেন আইএনটিটিইউসি’র নেতা অরুণ সেনগুপ্ত।

এদিন পুরসভায় টিফিন টাইমে প্রায় কয়েকশো কর্মচারী এই মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। হাওড়া জেলা আইএনটিটিইউসি’র সভাপতি অরূপেশ ভট্টাচার্য জানান, বিজেপির পুরসভায় তাণ্ডবের বিরুদ্ধেই তারা এই প্রতিবাদ মিছিল সংগঠিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, সোমবার পুরসভা অভিযান কর্মসূচি নিয়ে বিজেপির বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার কাণ্ড বেধে গিয়েছিল হাওড়ায়৷ চলেছিল পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি। বিজেপি কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে ব্যবহার করা হয়েছিল জল কামান। হাওড়ার পুর এলাকার নাগরিকরা সঠিক পরিষেবা পাচ্ছেন না এই অভিযোগ তুলে এবং অবিলম্বে পুরভোটের দাবিতে হাওড়া পুরসভায় বিক্ষোভ দেখায় জেলা বিজেপি যুব মোর্চা।

তারা মিছিল করে পুরসভার গেটের দিকে আসার চেষ্টা করলে হাওড়া সিটি পুলিশের বিশাল বাহিনী তাদের বাধা দেয়। তখনই পুলিশের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের রীতিমত ধ্বস্তাধস্তি বেধে যায়। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে শেষ পর্যন্ত জল কামান ব্যবহার করে পুলিশ।