কলকাতা- সপ্তাহান্তে বাঙালির ভ্রমণ মানেই দিঘায় বেড়াতে যাওয়া। অল্প খরচে আর অল্প সময়ে বেড়াতে যাওয়া মানেই দিঘার বিকল্প নেই। আর সেই দিঘাতেই এখন রাত হতেই বেড়েছে মোহময়ীদের হাতছানি। যৌনকর্মীর বেশে বৃহন্নলাদের খপ্পরে পড়ছেন পর্যটক থেকে এলাকার বাসিন্দারা।

জানা যাচ্ছে, ওল্ড দিঘা থেকে নিউ দিঘা পর্যন্ত বিভিন্ন গলিতে ঘাঁটি গেঁড়েছেন এই বৃহন্নলারা। রাত হতেই রং বেরংয়ের পোশাক পরে দাপাদাপি শুরু হয় তাঁদের। পর্যটকদের দেখলেই প্রথমে শুরু হয় নানা ইঙ্গিতে কথা বার্তা। আর তার পরে চলে দর কষাকষি। রীতিমতো জোর করে গাড়ি দাঁড় করিয়ে টাকা আদায় করেন বৃহন্নলারা। এমনকী, অনেক সময়ে কয়েকজন পর্যটক নিজেদের গাড়িতে তাঁদের তুলে যৌন চাহিদাও মেটায়। এর জেরে বিপদে পড়েন অন্যান্য পর্যটকরাও।

যৌনকর্মীদের বেশে বৃহন্নলাদের এই দাপাদাপিতে অসুবিধায় পড়েছেন পর্যটকরা। পরিবার ও শিশুদের নিয়ে দিঘায় বেড়াতে এসে তাঁদের রীতিমতো লজ্জিত হতে হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানাচ্ছেন, এই বৃহন্নলারা দিনের বেলায় সমুদ্র সৈকতে, বাসে টাকা তোলেন। কিন্তু রাত হতেই যৌন কর্মীর পোশাকে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকেন তাঁরা।

এই উৎপাতে বিপদে পড়ছেন ব্যবসায়ীরাও। নাজেহাল অবস্থা পর্যটক থেকে বাসিন্দাদেরও। এর জন্য প্রশাসনের কাছে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করেছেন পর্যটকরা।

দিঘায় পরিবার নিয়ে বেড়াতে গিয়েছিলেন বেলঘড়িয়ার বাসিন্দা তিমির দাস। দিঘা স্টেশনেই বৃহন্নলাদের খপ্পরে পড়েন তিনি। দূর থেকে প্রথমে বৃহন্নলারা কুৎসিৎ ইঙ্গিত করছিলেন। তার পরে তারা কাছে আসতেই তরিঘড়ি বাসে উঠে এলাকা থেকে চম্পট দেন তিমিরবাবু। এই ধরনের ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে না ঘটে তার জন্য তৎপর পদক্ষেপ করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে প্রশাসন।